অভিজিৎ চৌধুরি, মালদা: বুনো শুয়োরের হামলায় মৃত্যু হল এক জনের। জখম হয়েছেন তিনজন। এই ঘটনায় ক্ষিপ্ত গ্রামবাসীরা বুকে তীর মেরে ও বাঁশ, লাঠি দিয়ে পিটিয়ে শুয়োরটিকে মেরে ফেলে বলে অভিযোগ। শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে মোথাবাড়ি থানার মেঘুটোলা গ্রামে। এই ঘটনায় আহত তিনজনের চিকিৎসা চলছে মোথাবাড়ি এলাকার বাঙ্গিতলা গ্রামীণ হাসপাতালে। 
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মৃতের নাম ভরত ঘোষ (৩৫)। তিনি পেশায় দুধ বিক্রেতা। মৃতের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, কালিয়াচক ২ ব্লকে গঙ্গার জলে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত। ফলে ওই এলাকার জঙ্গল থেকে
বুনো শুয়োরের দল গ্রামে ঢুকতে শুরু করেছে। বেশ কিছুদিন ধরেই এনিয়ে গ্রামে আতঙ্কও ছড়িয়েছে। 
এদিন সকালে ভরত ঘোষ জমিতে গবাদি পশুর খাওয়ার জন্য ঘাস কাটতে গিয়েছিলেন। সেই সময় বুনো–শুয়োরের পাল অতর্কিতে তার ওপর হামলা চালায়। রক্তাক্ত অবস্থায় গ্রামবাসীরা তঁাকে উদ্ধার করে বাঙ্গিটোলা গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে জানিয়ে দেয়।

পাশাপাশি একই ভাবে ওই এলাকায় আরও তিনজন জখম হয়। 
এরপরই ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা একটি শুয়োরকে পিটিয়ে মেরে ফেলে। স্থানীয় বাসিন্দা সুবোধ মণ্ডল জানিয়েছেন, বুনো শুয়োরের দল গ্রামে ঢুকেছে, হামলা চালাচ্ছে। এনিয়ে এর আগেও বন দপ্তরকে জানানো হয়েছিল। কিন্তু বন দপ্তর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়নি। নিজেদের আত্মরক্ষার খাতিরেই একটি বুনো–শুয়োরকে মারা হয়েছে। কালিয়াচক–২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিঙ্কুর রহমান বিশ্বাস বলেন, ‘‌খবর পেয়ে আমি ওই এলাকায় গিয়েছিলাম। মৃত ও আহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছি। বুনো–শুয়োরের হামলা নিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে একটা আতঙ্ক ছড়িয়েছে। বন দপ্তরকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হবে।’‌ মালদার বিভাগীয় বনাধিকারিক অনশু যাদব বলেন, ‘‌এই ঘটনা সম্পর্কে কিছু জানা নেই। নির্দিষ্টভাবে কোনও অভিযোগ এলে অবশ্যই তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’‌ 

 

শুয়োরের হামলায় মৃত ভরত ঘোষ। গ্রামবাসীর আক্রমণে মৃত শুয়োর। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top