আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির দেখা নেই সেভাবে। কিন্তু গত কয়েকদিনে উত্তরবঙ্গ, ভূটান, নেপালে চলছে অবিরাম বৃষ্টি। আর এর জেরেই উত্তরবঙ্গের পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটল। জল ঢুকতে শুরু করেছে আলিপুরদুয়ার–কোচবিহারের একাধিক গ্রামে। সঙ্গে রয়েছে বন্যার ভ্রূকূটি। এর মধ্যেই শনিবার সকালে জল ঢুকতে শুরু করেছে জলদাপাড়া অভয়ারণ্যে। যার জেরে সমস্যার মুখে বন্যাপ্রাণীরাও। ইতিমধ্যেই জলমগ্ন অভয়ারণ্য পরিদর্শন করেছেন বিডিও৷ বনকর্মীদের ২৪ ঘণ্টা পরিস্থিতির উপর নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ পরিস্থিতির অবনতি হলে বন্যপ্রাণীদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ভাবনাচিন্তা করছে বনদপ্তর৷ এদিকে, প্রতি মুহূর্তে বাড়ছে রায়ডাক, বামনি, সংকোশ নদীর জলস্তর৷ ইতিমধ্যে জলের তোড়ে বেশ কিছু জায়গায় বাঁধ ভেঙে গিয়েছে। একটানা বৃষ্টিতে বিভিন্ন রাস্তাতেও নেমেছে ধস৷ রাতভর ভারী বৃষ্টির জেরে কালিম্পংয়ের শ্বেতিঝোরায় ধস নেমেছে৷ যার ফলে বিপাকে পর্যটকরা৷ এছাড়াও বৃষ্টির জেরে বন্ধ বাংলা–সিকিম সংযোগকারী ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক৷ রেললাইনেও জল উঠে গিয়েছে৷ বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে৷ প্রশাসন সূত্রে খবর, সোমবার বৈঠকে বসবেন আধিকারিকরা৷ উপস্থিত থাকবেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীও৷  এই পরিস্থিতিতে যদিও আবহাওয়া দপ্তর কোনও সুখবর শোনাতে পারেনি৷ আবহবিদরা জানিয়েছেন, রবিবার রাত পর্যন্ত চলবে বৃষ্টি৷ সোমবার থেকে বৃষ্টি কমলে আবহাওয়ার উন্নতি হতে পারে৷

জনপ্রিয়

Back To Top