আজকালের প্রতিবেদন, শিলিগুড়ি: সিঙ্গাপুরের স্বাদ পেতে এবার যেতে হবে সাফারি পার্কে। তার ব্যবস্থা করতে চলেছে রাজ্য সরকার। এখানে সিঙ্গাপুর চিড়িয়াখানার ধাঁচে তৈরি হবে পাখিরালয়। পাশাপাশি সাফারি পার্কে জিরাফ আনার বিষয়েও কথাবার্তা চলছে বলে জানা গেছে। শিলিগুড়ির অদূরে পাহাড়ের পাদদেশে শালুগাড়াতে অবস্থিত বেঙ্গল সাফারি পার্ক ইতিমধ্যেই ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। পার্ককে আরও নতুন করে সাজাতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার। এই পার্কে পাখিরালয় থাকলেও তা খাঁচাবন্দি থাকে, আর তা বাইরে থেকে দেখতে হয়। কিন্তু সিঙ্গাপুরের ধাঁচে হলে খাঁচার ভেতরে মানুষ ঢুকতে পারবে। আর ম্যাকাও পাখিদের হাতে নিয়ে ছবিও তুলতে পারবেন, যা এই পার্কের আকর্ষণ দ্বিগুণ বাড়িয়ে দেবে। সিঙ্গাপুরের চিড়িয়াখানায় এই সুবিধা রয়েছে। এছাড়াও জিরাফ আনা যায় কিনা তা নিয়েও চিন্তাভাবনা শুরু করেছে বনদপ্তর।
সাফারি পার্কে তৈরি হবে কর্মতীর্থ। যেখানে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর জিনিসপত্র বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন পার্ক কর্তারা। বেঙ্গল সাফারি পার্কের ডিরেক্টর অরুণ মুখার্জি জানিয়েছেন, সাফারি পার্ককে আরও নতুন করে সাজানোর চেষ্টা চলছে। সিঙ্গাপুরে যে পাখিরালয় রয়েছে, সেরকমই এখানে করা যায় কিনা তার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে এর জন্য সুপ্রিম কোর্টের অনুমতি প্রয়োজন। তাই অপেক্ষা করা হচ্ছে। এই অনুমতির জন্য ইতিমধ্যে আবেদনও করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া জিরাফ সাফারি করা যায় কিনা তার চেষ্টাও চলছে। যদিও বিষয়টি এখনও প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। সাফারি পার্কে আরও হাতি আনা হবে বলে জানা গেছে। কুমিরের সংখ্যাও আরও বাড়ানো হবে। বাড়বে চিতাবাঘের সংখ্যাও। 
সিঙ্গাপুরের ধাঁচে পাখিরালয় কিংবা জিরাফ সাফারি শুরু করলে এই পার্কের জনপ্রিয়তা যে আরও বাড়বে তা বলাই যায়। স্থানীয় মানুষ ছাড়াও পর্যটকদের ভিড় এক লাফে দ্বিগুণ হয়ে যাবে। এমনিতেই গত কয়েকমাসে সাফারি পার্কের আকর্ষণ একলাফে অনেকটাই বেড়ে গেছে। পাহাড় বা ডুয়ার্স থেকে ফেরার পথে অনেকেই একবার মারছেন সাফারি পার্কে। ফেরার ট্রেন রাতের দিকে। তাই, অনেকেই দুপুরের আগে শিলিগুড়ি চলে আসছেন। বাকি সময়টা সাফারি পার্কেই সুন্দরভাবে কেটে যাচ্ছে। বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন বলেন, উত্তরবঙ্গের একটা বড় আকর্ষণ বেঙ্গল সাফারি পার্ক। সেটাকে পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় করতে প্রতিনিয়ত আমাদের নতুন নতুন পরিকল্পনা নিতে হয়। জিরাফ সাফারি আর পাখিরালয়কে উন্নতমানের করা গেলে আরও বেশি করে পর্যটক আসবেন এখানে।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top