সব্যসাচী ভট্টাচার্য, সঞ্জয় বিশ্বাস, দার্জিলিং: পাহাড়ের উন্নয়নে এবার বিশেষজ্ঞ কমিটি গড়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মঙ্গলবার দুপুরে দার্জিলিঙে মুখ্যমন্ত্রীর আবাস রিচমন্ড হিলের পাশে জেলাশাসকের বাংলোয় জিটিএ–‌‌র বিডিও বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্তের কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী নিজে। তিনি বলেন, ‘‌উন্নয়ন নিয়ে অনেক প্রস্তাব আসে, বিশেষজ্ঞ কমিটি ৬ মাসের মধ্যে উন্নয়ন–‌সংক্রান্ত প্রস্তাব সরকারকে জানাবে।’
মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে এই কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে দার্জিলিঙের বিধায়ক অমর সিং রাইকে। মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে থাকছেন জিটিএ–‌র তত্ত্বাবধায়ক চেয়ারম্যান বিনয় তামাং। কমিটিতে থাকবেন ভাইস চেয়ারম্যান অনিত থাপা, পাহাড়ের সব ক’‌টি পুরসভার চেয়ারম্যান, দার্জিলিং ও কালিম্পঙের জেলাশাসকেরাও। সেখানে দার্জিলিঙের বণিক সভার প্রতিনিধিদেরও রাখার কথা জানানো হয়েছে।
পাহাড়ের উন্নয়নে কী করা প্রয়োজন, তা নিয়ে কমিটির সুপারিশ খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য সরকার। পাহাড়ের উন্নয়নে মুখ্যমন্ত্রী কী দিশা দেখান, তা জানতে জিটিএ–‌‌র প্রশাসনিক বৈঠকের দিকে নজর ছিল সকলের। মঙ্গলবার বেলা তিনটেয় বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে বিনয় তামাং, অনিত থাপা, দার্জিলিং ও কালিম্পঙের জেলাশাসক, পুরসভার চেয়ারম্যানরা ছাড়াও রাজ্যের দুই মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও ইন্দ্রনীল সেন উপস্থিত ছিলেন।
মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘‌নতুন দার্জিলিং গড়তে হবে। সেই লক্ষ্যে মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার প্রয়োজন। তাই মুখ্য সচিব বিশেষজ্ঞ কমিটি গড়ে দিয়েছেন। কলকাতায় গিয়েই এই কমিটির নোটিফিকেশন করা হবে।’‌ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌পর্যটন–‌সহ অনেক বিষয়ে কাজ করার প্রয়োজন রয়েছে। শিক্ষার ক্ষেত্রে অনেক কাজ হয়েছে। কার্শিয়াঙে এডুকেশনাল হাব গড়ে তোলা হচ্ছে। গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে কালিম্পংকেও। স্থানীয় মানুষের দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার। কেন্দ্র সেই দাবিকে গুরুত্ব দেয়নি। রাজ্যের উদ্যোগে সেই বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে দেওয়া হচ্ছে।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম রাখা হয়েছে দার্জিলিং গ্রিন হিল ইউনিভার্সিটি। দার্জিলিং, কার্শিয়াং, কালিম্পং শহর ইতিমধ্যেই জনাকীর্ণ হয়ে গিয়েছে। এর সম্প্রসারণ প্রয়োজন। পাহাড়ে অর্থনৈতিক তুলে ধরতে নতুন পর্যটন ক্ষেত্রও গড়ে তুলতে হবে। সবটা মিলিয়েই পরামর্শদাতার ভূমিকা পালন করবে এই নয়া বিশেষজ্ঞ কমিটি। কমিটির চেয়ারম্যানকে পৃথক গাড়ি ও অফিস দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।
বৈঠকের পর কমিটি গঠনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন জিটিএ প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান বিনয় তামাং। তিনি বলেন, ‘‌গত ৪০ বছরে পাহাড়ে মানুষ উন্নয়ন দেখেননি। এখন তা দেখছেন। মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমরা পাহাড়কে নতুন করে গড়তে চাই। সেইমতো কাজ শুরু হয়েছে।’‌ বিনয় জানান, ‘‌পাহাড়ের মানুষের আবেগের কথা মাথায় রেখে নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম দার্জিলিং গ্রিন হিল বিশ্ববিদ্যালয় করার প্রস্তাব দিয়েছি। মুখ্যমন্ত্রী তা মেনে নিয়েছেন। বুধবার দার্জিলিং ম্যালের অনুষ্ঠান থেকে নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাস করবেন মুখ্যমন্ত্রী। এ ছাড়া ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ম্যালের সৌন্দর্যায়ন প্রকল্পের শুভ সূচনা করার কথাও তঁার। রয়েছে পাহাড়ের বনবস্তি বাসিন্দাদের পাট্টা বিলি–‌সহ বেশ কিছু কর্মসূচিও। মুখ্যমন্ত্রীর কলকাতায় ফেরার সময় এগিয়ে আসায় ম্যালে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় মঞ্চ নির্মাণের কাজ চলছে।

জনপ্রিয়

Back To Top