পার্থসারথি রায়, জলপাইগুড়ি: বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন এক কলেজ ছাত্রী। তরুণীর পাশে দাঁড়িয়ে সেখানে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় মহিলা সমিতির সদস্যরাও। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে বাড়িতে তালা লাগিয়ে চম্পট দেয় প্রেমিক ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের অরবিন্দ গ্রাম পঞ্চায়েতের সেবাগ্রাম এলাকায়। ঘটনার পর থেকেই বেপাত্তা বি টেক পাশ করা ওই প্রেমিক। 
ধর্নায় বসা কলেজ ছাত্রীর অভিযোগ, গত ছয় বছর ধরে তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে প্রেমিক সম্রাট রায়ের। কিন্তু আচমকাই দূরে সরে গিয়েছেন সম্রাট। বিয়ে করতে বললেও রাজি হচ্ছেন না। বাধ্য হয়ে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ির সামনেই ধর্নায় বসে পড়েন তিনি। কলেজ ছাত্রী তরুণীর এই লড়াইয়ে তাঁর পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন জলপাইগুড়ির সহেলি মহিলা সমিতির সদস্যরাও। মধ্য সেবাগ্রাম এলাকার যুবক সম্রাট রায় ভালোবাসার জালে ফাঁসিয়ে তাঁর সঙ্গে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক গড়েছেন বলেও দাবি করেন তাঁরা। দীর্ঘ ছয় বছর ধরে প্রেম করে এখন তাঁকে প্রত্যাখ্যান করছেন ওই যুবক। তরুণীর দাবি, তিনি সম্রাটকেই বিয়ে করতে চান। সহেলি মহিলা সমিতির সম্পাদিকা মিলি রায় বলেন, মেয়েটির সঙ্গে প্রতারণা হয়েছে। সম্রাট ওই মেয়েকে বিয়ে না করলে তাঁকে উপযুক্ত শাস্তি পেতে হবে। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য শঙ্করী ঘোষ বলেন, এই প্রেমের সম্পর্কের বিষয়টি নিয়ে বারবার আলোচনায় বসা হয়েছে। কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি। প্রয়োজনে ফের আলোচনায় বসা হবে। ধর্নার বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে আসে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার পুলিশ। আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার বলেন, খবর .পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পরে ওই তরুণী জলপাইগুড়ি মহিলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জনপ্রিয়

Back To Top