পার্থসারথি রায়, জলপাইগুড়ি: বর্ষার শুরুতেই উত্তরবঙ্গে সস্তায় ইলিশ। বাজারে এসে কম দামে ইলিশ পেয়ে আপ্লুত ভোজনরসিকরা। এদিকে, ইলিশের রমরমা বাজার তৈরি হওয়ায় মাছ ব্যবসায়ীরাও বেশ খুশি। বর্ষা আসতেই উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলা–সহ ডুয়ার্সের বিভিন্ন বাজারে দাম পড়ে যায় ইলিশের। পাঁচশো থেকে সাতশো গ্রাম ওজনের ভাল ইলিশ মিলছে চার থেকে পাঁচশো টাকা কেজি দরে। এর কমে ছোট মাপের ইলিশ দুশো ও তিনশো টাকা কেজি দরেও পাওয়া যাচ্ছে। তাই ইলিশ কিনতে ভিড় বাড়ছে জলপাইগুড়ি ও ডুয়ার্সের বিভিন্ন বাজারে। সস্তায় ইলিশ মাছ পেয়ে একসঙ্গে দু–‌তিনটে করেও ইলিশ কিনছেন ক্রেতারা। 
জলপাইগুড়িতে ইতিমধ্যেই প্রচুর পরিমাণে ঢুকেছে বর্ষার ইলিশ। দিনবাজারের মাছ ব্যবসায়ীরা জানান, প্রচুর ইলিশ চলে এসেছে বাজারে। সাইজ মাঝারি মানের। তাই দামেও খুব সস্তা। জলপাইগুড়ি শহরের বাসিন্দা স্বপন সরকার দিনবাজার থেকে সাতশো গ্রাম ওজনের দুটো ইলিশ কিনেছেন। বলেন, ‘‌বর্ষার শুরুতেই এত সস্তায় ইলিশ মাছ কিনতে পেরে বেশ আনন্দ হচ্ছে। আগামীদিনেও দাম এমন কম থাকলে মন ভরে কয়েকদিন লাগাতার ইলিশ মাছ খাওয়া যাবে।’‌ বিনয় দাস নামে অন্য এক ক্রেতা বলেন, ‘‌পাঁচশো গ্রাম ওজনের দুটো ইলিশ মাত্র তিনশো টাকায় পেয়েছি। এর বেশি আর কী চাই?‌’‌ দিনবাজারের পাইকারি ও খুচরো বাজারে গত দু’‌দিন ধরে প্রচুর পরিমাণে ইলিশ বিক্রি হচ্ছে। দিনবাজারের মাছ ব্যবসায়ী দিনেশ শা ও প্রদীপ মাহাতোরা জানান, বর্ষা শুরু হয়ে যাওয়ায় গঙ্গার মোহনায় প্রচুর ইলিশ উঠে আসছে। এজন্য এখন দামেও বেশ সস্তা। প্রতি কেজি দুশো টাকা থেকে শুরু করে পাঁচশো টাকাতে মিলছে। মাছ বিক্রেতাদের দাবি, এত কম দামে ইলিশ মিলছে বলে অন্য মাছের বিক্রিও অনেক কমে গেছে। ইলিশ ছাড়া অন্য কোনও মাছের বেশি চাহিদাও নেই। তবে উত্তরবঙ্গের বাজারে এখনও বাংলাদেশের ইলিশ আসেনি। বর্তমানে ডায়মন্ড হারবার ও ফরাক্কার ইলিশই পাওয়া যাচ্ছে শহরের বিভিন্ন বাজারে। 

জনপ্রিয়

Back To Top