সুনীল চন্দ, রায়গঞ্জ: সিএএ নিয়ে হালে পানি পেতে এবার উত্তর দিনাজপুরের গ্রামে–গঞ্জে পিকনিকে মেতেছে বিজেপি। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের পক্ষে সমর্থন পেতে গাঁয়ের মানুষকে জামাই আদর করে ভোজ খাওয়াচ্ছে জেলা বিজেপি। বুধবার ক্যা–এর প্রচারে এমনই গ্র‌্যান্ড পিকনিকের আসর বসেছিল কালিয়াগঞ্জ থানার বালাস গ্রামে। সদ্য সমাপ্ত কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার উপ–নির্বাচনে পরাজিত বিজেপি প্রার্থী কমলচন্দ্র সরকারের বাড়ি এই বালাস গ্রামেই। উপনির্বাচনেই এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইন নিয়ে মানুষের ক্ষোভ টের পেয়েছে বিজেপি। বুধবার বিজেপি নেতারা স্থানীয় বাসিন্দাদের নাগরিকত্ব আইনের ব্যাখ্যা দেন। এরপরই পাতপেড়ে ভোজ খাওয়ানো হল বালাস গ্রামের কয়েক হাজার মানুষকে। রীতিমতো পিকনিকের মেজাজ বিশাল মাঠে। মেনুতে ছিল সাদা ভাত, ডাল, সবজি, পনির এবং টমেটোর চাটনি। 
এ ধরনের পিকনিক বা ভোজের আয়োজন চলবে জেলা জুড়েই। ইটাহারের গেন্দামণি মেলা মাঠেও আয়োজিত হয়েছে বিজেপি–র প্রচারসভার সঙ্গে গ্র‌্যান্ড পিকনিক। জেলার ৯টি ব্লকেই নাগরিক আইনের পক্ষে প্রচার সভার পাশাপাশি এমন পিকনিক চলবে বলে জানিয়েছেন জেলা বিজেপি সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী। বিশ্বজিৎবাবু বলেন, ‘‌নাগরিক আইনের পক্ষে বলতে এলাকারই বিজেপি সদস্যদের মধ্যে কয়েকজনকে বেছে নিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এঁরাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার চালাবেন। বিলি হচ্ছে প্রচারপত্রও।’‌ 
বিজেপি নেতাদের শুকনো বক্তব্যে মানুষের আগ্রহ নেই। ক্যা ও এনআরসি নিয়ে রীতিমতো আতঙ্ক রয়েছে মানুষের মধ্যে। তাই এই ভোজের আয়োজন। বালাসে বিজেপি–র প্রচারসভার দিন উনুন জ্বলেনি গ্রামে। বিজেপি নেতাদের বক্তব্য শুনে পেটপুরে সবাই খেয়েছেন নিরামিষ ভোজ। গ্রামের বাসিন্দা আচালু বর্মন, শুভাতু রায়দের বক্তব্য, ‘‌শুনেছি। পেটপুরে খেয়েছি।’‌ শীতে এমন পিকনিকের মজা ছাড়ে কে?‌ কংগ্রেস, তৃণমূল, সিপিএম পিকনিকে ডাকলেও সপরিবার যাবেন বলে জানান অনেকেই। যদিও বিজেপি–‌বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের কটাক্ষ, মানুষ সবই বোঝেন। ঠিক সময়ে ঠিক জায়গাতেই জবাব দেবেন তাঁরা।

 

বালাসে চলছে বিজেপি–র পিকনিক। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top