পার্থসারথি রায়, জলপাইগুড়ি, ১১ নভেম্বর- জলদাপাড়ায় খুন হওয়া গন্ডারের খড়্গ খুঁজতে গিয়ে হাতির দাঁত উদ্ধার করলেন বনকর্মীরা। গ্রেপ্তার করা হয়েছে গন্ডারের খড়্গ কিনতে আসা দুই আন্তর্জাতিক পাচারকারীকে। ধৃতদের মধ্যে রয়েছে ভুটানের কুখ্যাত বন্যপ্রাণ পাচারকারী গেম দর্জি ও অসমের বাসিন্দা রবীন্দ্র বসুমাতারি। 
জলদাপাড়ায় চোরাশিকারিদের হাতে খুন হওয়া গন্ডারের খড়্গটি ৪৫ লক্ষ টাকায় বিক্রি করার কথা ছিল পাচারকারীদের। খড়্গটি কেনার জন্য ভুটানের থিম্পু থেকে নেমে অসমের শ্রীরামপুরে আসে গেম দর্জি। সেটি থিম্পুতে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল তার। যদিও গোপন সূত্রে এই খবর চলে আসে বন দপ্তরের উত্তরবঙ্গের স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্সের প্রধান সঞ্জয় দত্তর কাছে। জলদাপাড়ায় চোরাশিকারিদের হাতে খুন হওয়া গন্ডারের খড়্গটি ৪৫ লক্ষ টাকায় বিক্রি হতে যাচ্ছে খবর পেয়ে অসম সীমান্তে যান তিনি। তাঁর সঙ্গে ছিল বনকর্মীদের একটি বিশেষ দল। গন্ডারের খড়্গটি বর্তমানে অসমের শ্রীরামপুর এলাকায় রয়েছে বলে জানতে পারেন তাঁরা। তবে খড়্গ খুঁজতে গিয়ে ১২০০ গ্রাম ওজনের একটি হাতির দাঁতের অংশ উদ্ধার করেন বনকর্মীরা।
বনাধিকারিক গঙ্গাপ্রসাদ ছেত্রি জানান, সম্প্রতি ডুয়ার্সের জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানে একটি গন্ডারকে খুন করে তার খড়্গটি কেটে নিয়ে পালিয়ে যায় চোরাশিকারিরা। ওই ঘটনায় জড়িত চোরাশিকারি ও খড়্গ পাচারকারীদের ধরার জন্য সোমবার ভোর রাতে বাংলা–‌‌অসম সীমান্তবর্তী এলাকায় অভিযান চালিয়েছিল বন দপ্তরের উত্তরবঙ্গ স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্সের বনকর্মীরা। তবে গন্ডারের খড়্গ উদ্ধার করতে না পারলেও বনকর্মীরা একটি হাতির দাঁত–‌সহ দুজন পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করেন। 
বনদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, টাস্ক ফোর্সের হাতে নির্দিষ্ট তথ্য আসার পর এদিন ভোর রাতে বাংলা–অসম সীমান্তের শ্রীরামপুর এলাকায় অভিযান চালানো হয়। সেখান থেকে হাতির দাঁত, বন্যপ্রাণীর দেহাংশ–‌সহ দুই পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করা হলেও কোনওভাবে খবর পেয়ে বাকিরা পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় একটি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার ‌হওয়া দুই আন্তর্জাতিক পাচারকারী। ছবি:‌ প্রতিবেদক‌

জনপ্রিয়

Back To Top