পঙ্কজ সরকার, মালদা, ২২ এপ্রিল- ভোট পরিচালনার দায়িত্ব নিতে হবে। প্রাথমিক ভাবে এতে কিছুটা আতঙ্কে ভুগলেও প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর সেই আতঙ্ক অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছেন মালদা জেলার মহিলা ভোট কর্মীরা। সোমবার ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে গিয়ে যথেষ্টই উৎসাহিত দেখাল তঁাদের। কত তাড়াতাড়ি গণতন্ত্রের উৎসবে অংশ নিতে পারবেন আপাতত সেই অপেক্ষাতেই রয়েছেন।
 মহিলাদের অনেকেরই বক্তব্য, বাড়ির কারও মুখে, বা পুরুষ সহকর্মীদের মুখে ভোট গ্রহণের কথা শুনেছেন। ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে কত মানুষের আনাগোনা, তাঁদের মুখে ভোট করানোর অনেক কথাই শুনেছেন এতদিন। এবার তাঁরা নিজেরাই সেই দায়িত্ব পালন করবেন। মহিলাদের মধ্যে মৌমিতা মণ্ডল, শিপ্রা বিশ্বাস, কথিকা বিশ্বাস, অর্পিতা মণ্ডলদের দলটির সঙ্গে দেখা হল ডিসিআরসি মালদা কলেজ প্রাঙ্গণে। গাজোলের শ্যামসুখী বালিকা শিক্ষা নিকেতন তাঁদের ভোট গ্রহণ কেন্দ্র। 
গাজোল শহরের মধ্যেই ভোটগ্রহণ কেন্দ্র পড়ায় তাঁরা আরও খুশি। ভোট সরঞ্জামগুলির পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজ শেষ করে ভোট কেন্দ্রে রওনা হতে চলেছেন তাঁরা। মৌমিতাদেবী প্রিসাইডিং অফিসার। বেশ রোমাঞ্চিত তিনিও। বলেন, ‘আমাদের প্রথম ভোট গ্রহণের দায়িত্ব এবার। প্রথমের দিকে নির্বাচনের চিঠি পেয়ে আতঙ্কিত ছিলাম। প্রায়ই সময় বুথে বুথে গন্ডগোলের কথা আমরা শুনে এসেছি। পরে প্রশিক্ষণ পেয়ে সেই ভয়টা কেটে গেছে। এখন ভোট নেওয়ার অপেক্ষায় রয়েছি।’‌ একই কথা সুস্মিতা দত্ত, মিনাক্ষী বিশ্বাস, নন্দিতা বেসরা, মৌসুমী মুহুরিদেরও। তাঁদেরও একই স্কুলে ভোট গ্রহণ কেন্দ্র পড়েছে। 

নির্বাচনের সরঞ্জাম নিয়ে মহিলা কর্মীরা। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top