আজকালের প্রতিবেদন, জলপাইগুড়ি, ৩ সেপ্টেম্বর- জলপাইগুড়ির রামকৃষ্ণ আশ্রমেও শুরু হয়ে গেল দুর্গাপুজোর প্রস্তুতি। সোমবার কাঠামো পুজোর মাধ্যমে পুজোর সূচনা করলেন আশ্রমের মহারাজ। জলপাইগুড়ির রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমের দুর্গাপুজো বরাবরই বিশেষ নিয়ম–‌রীতি মেনে করা হয়। সেই অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হল কাঠামো পুজো। 
১৯৬১ সালে প্রথম শুরু হয়েছিল জলপাইগুড়ির রামকৃষ্ণ আশ্রমের এই দুর্গাপুজো। ওই সময় আশ্রমের সম্পাদক ছিলেন স্বামী বগলানন্দজি মহারাজ। তাঁর বিশেষ প্রচেষ্টায় নাট মন্দিরে শুরু হয় দুর্গাপুজো। তখন রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমের মৃৎশিল্পী ছিলেন জলপাইগুড়ি শহরের বিখ্যাত প্রতিমা প্রস্তুতকারক নিতাই পাল। এখন সেই দায়িত্ব পালন করছেন কৃষ্ণ পাল। এবারও তিনিই আশ্রমের প্রতিমা তৈরি করবেন। রামকৃষ্ণ আশ্রমের রীতি অনুযায়ী মূলত জন্মাষ্টমীর পরের দিনই কাঠামো পুজোর আয়োজন করা হয়। 
এবার ৫৮ তম বর্ষে পদার্পন করেছে রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রমের পুজো। সোমবার সকালেই শুরু হয়ে যায় প্রতিমার কাঠামো পুজো। কোনও জাকজমক ছাড়াই মন্ত্র উচ্চারণ ও ভক্তি শ্রদ্ধার সাথে পুজো হয় এখানে। আশ্রমের মহারাজ স্বামী শিব প্রেমানন্দজি জানান, প্রতি বছর আশ্রমের ভেতরেই তৈরি করা হয় দেবী প্রতিমা। জন্মাষ্ঠমীর পরদিন থেকেই কাঠামোর উপর মাটির প্রলেপ দিয়ে প্রতিমা নির্মাণের কাজ শুরু হয়। এদিন চন্দন, ফুল, ফল ও অন্যান্য পুজোর সামগ্রী দিয়ে আশ্রমের পুরোহিতরা কাঠামো পুজো করেন। 

কাঠাম পুজোর মাধ্যমে পুজোর সূচনা জলপাইগুড়ির রামকৃষ্ণ আশ্রমে। ছবি:‌ প্রতিবেদক
 

জনপ্রিয়

Back To Top