অভিজিৎ চৌধুরি, মালদা, ৪ নভেম্বর- ফের গণপিটুনি মালদায়। এবার গণপিটুনির জেরে মৃত্যুও হয়েছে আক্রান্তের। বিভিন্ন সময় উত্তরবঙ্গের জেলায় জেলায় গনপিটুনির অভিযোগ উঠেছে। বিশেষ করে আলিপুরদুয়ার ও মালদা জেলায় এই ধরনের বেশ কয়েকটি অভিযোগ সামনে এসেছে। মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে কিছু ক্ষেত্রে। রাজ্য সরকার গণপিটুনি রুখতে কড়া বার্তা দিয়েছে। এমনকী আইন প্রণয়ন করে কঠোর শাস্তির বিধানও রাখা হয়েছে। কিন্তু তাতেও এই প্রবণতায় খামতি নেই।
রবিবার রাতে রাস্তার খুঁটিতে সামান্য গরু বাঁধাকে কেন্দ্র করে গণপিটুনির ঘটনায় মালদায় মৃত্যু হয়েছে এক ব্যক্তির। ঘটনাটি ঘটেছে মোথাবাড়ি থানার পঞ্চানন্দপুর গ্রামে। এই ঘটনায় সাতজনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে মৃতের পরিবার। পুলিশ তদন্তে নেমে তিনজন হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করেছে। ধৃতদের নাম ভূদেব মণ্ডল, বাসুদেব মণ্ডল ও কাজল মণ্ডল। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃত ব্যক্তির নাম অজয় দাস (৪৬)। পেশায় কৃষি কাজ করতেন তিনি। মৃতের ভাই স্বরূপ দাস জানিয়েছেন, তাঁদের বাড়ির পাশেই গোয়াল ঘর রয়েছে। গোয়ালের পাশেই রয়েছে গ্রামীণ কাঁচা রাস্তা। সোমবার সন্ধে সাতটা নাগাদ অজয় বাড়ি রাস্তার সামনের খুঁটিতে গরু বাঁধছিলেন। সেই সময় গরুটি ছুটে বেড়িয়ে যায়। গ্রামের রাস্তা দিয়ে সেসময় উল্টো দিক থেকে আসছিল প্রতিবেশী চিরঞ্জিত মণ্ডল। সেই সময় গরুটি চিরঞ্জিতকে ধাক্কা মারে। ঘটনায় পড়ে যায় চিরঞ্জিত। এরপরই চিরঞ্জিত ও অজয়ের মধ্যে প্রকাশ্য রাস্তায় বচসা শুরু হয়।  গ্রামবাসীদের তৎপরতায় সেই সময় সমস্যার সমাধান হলে একে অপরের বাড়ি চলে যান। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে রাত দশটা নাগাদ চিরঞ্জিত মণ্ডল দলবল নিয়ে এসে অজয়ের ওপর চড়াও হয়ে গণপিটুনি দিতে শুরু করে। অন্যান্য গ্রামবাসীরা এসে আধমরা অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় বাঙ্গিটোলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। এদিকে ঘটনা বেগতিক দেখে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত চিরঞ্জিত মণ্ডল ও তার দলবল।
জখম অজয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে মালদা মেডিক্যালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। 
মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে গোটা ঘটনায় মোথাবাড়ি থানাতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া জানিয়েছেন, ‘‌মৃতদেহ ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে মোথাবাড়ি থানার পুলিশ। বাকিদের খোঁজ চালানো হচ্ছে।’‌ 

আদালতের পথে এক ধৃত। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top