সব্যসাচী ভট্টাচার্য, সঞ্জয় বিশ্বাস,দার্জিলিং: সাত দশকের অপেক্ষা। অবশেষে স্বপ্নপূরণের কাণ্ডারি সেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। একাধিক নামী স্কুলের দৌলতে শিক্ষার পীঠস্থান হিসেবে চিহ্নিত দার্জিলিঙে কোনও বিশ্ববিদ্যালয় না থাকার আক্ষেপ মিটিয়ে দিলেন তিনিই। শিক্ষক দিবসে ম্যালের মঞ্চ থেকে দার্জিলিং হিল ইউনিভার্সিটির নির্মাণকাজের শুভ সূচনা করে পাহাড়ের বুকে ইতিহাস রচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর এই পদক্ষেপে আপ্লুত গোটা পাহাড়। শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, পড়ুয়া থেকে শুরু করে রাজনৈতিক মহলও মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। এমনকী এই মুহূর্তে পাহাড়‌ছাড়া রোশন গিরিও এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‌আমরা এই দাবি জানিয়ে আসছিলাম। অবশেষে রাজ্য সরকার তা বাস্তবায়িত করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাকে স্বাগত জানাই।’‌ ১৯৫৪ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবি জানিয়ে আসছে দার্জিলিং। এদিনের সভামঞ্চে আকুতির সেই ইতিহাস স্মরণ করে বিনয় তামাংয়ের আক্ষেপ, স্বাধীনতা–পরবর্তী দেশের কোনও সরকার তাঁদের এই আর্জিতে কর্ণপাত করেনি। যা করে দেখালেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি পাহাড়বাসীর হৃদয়ের অন্তস্তল থেকে ধন্যবাদবার্তা জানান মুখ্যমন্ত্রীকে।
মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তে রীতিমতো উচ্ছ্বসিত জন আন্দোলন পার্টির সভাপতি হরকাবাহাদুর ছেত্রিও। সম্প্রতি বিভিন্ন কারণে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কিছুটা দূরত্ব সৃষ্টি হলেও, এদিন মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকায় আপ্লুত পাহাড়ের এই বর্ষীয়ান রাজনীতিক। মঞ্চ থেকেই জানান, ‘‌অনেক দিন অপেক্ষা করেছি। আজ তা পূরণ হল। তাই মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।’‌ মংপুর সিঙ্কোনা চাষের জমি থেকে আপাতত ২৫ একর জমিকে চিহ্নিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ শুরু হবে। ভবিষ্যতে প্রয়োজনে আরও জমির সংস্থান করার কথা মাথায় রেখেছে রাজ্য সরকার। পাহাড়ের আবেগের কথা মাথায় রেখে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম রাখা হয়েছে দার্জিলিং হিল ইউনিভার্সিটি। মঞ্চ থেকে হরকাবাহাদুরের পরামর্শ, হিমালয় ও এই অঞ্চলের সঙ্গে সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে যেন পড়াশোনার সুযোগ থাকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন, তেনজিং নোরগে, নেপালি কবি ভানুভক্ত ও কাঞ্চনজঙ্ঘার নামে ‌তিনটি পৃথক ক্যাম্পাস থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ে। হিমালয়ান স্টাডিজ, হিউম্যানিটিস, সোশ্যাল সায়েন্স, সাংবাদিকতা, বিজ্ঞান, পর্যটন ও প্রযুক্তির বিভিন্ন ধারায় পড়াশোনার সুযোগ থাকবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে। পড়ানো হবে ভোকেশনাল কোর্সও। রাজ্যে ক্ষমতায় এসে ২৩টি বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করেছে রাজ্য সরকার। আরও ৯টি তৈরি হচ্ছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। দার্জিলিং হিল ইউনির্ভাসিটিকে কেন্দ্র করে মংপু এলাকায় পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজও শুরু হয়েছে। হরকাবাহাদুর ছেত্রি বলেন, ‘‌দার্জিলিং যেমন ব্র‌্যান্ড, তেমনই ব্র‌্যান্ড হিসেবেই গড়ে তুলতে হবে এই নয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে।’ ‌বিনয় তামাং বলেন, ‘‌১০ নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর লোহাপুল থেকে ৮ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে। যা দিয়ে শিলিগুড়ি থেকে মাত্র ৪৫ মিনিটেই পৌঁছনো যাবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে।’‌ ‌

জনপ্রিয়

Back To Top