পার্থসারথি রায়, জলপাইগুড়ি, ১০ জুন- গরমের ছুটির ফাঁকে একদল শিশুকে নিয়ে আস্ত একটি সিনেমা তৈরি করে তাক লাগিয়ে দিলেন জলপাইগুড়ির এক তরুণ সিভিল ইঞ্জিনিয়ার। সুকুমার রায়ের কাহিনী অবলম্বনে ‘‌পাগলা দাশু’‌ ছবি তৈরি করেছেন তিনি। জলপাইগুড়ি পলিটেকনিক কলেজ থেকে সদ্য পাশ করেছেন অভিরূপ গাঙ্গুলি নামে এই তরুণ চিত্র পরিচালক। তাঁর ডাক নাম জিকো। সখের বশেই নিজের মোবাইল দিয়ে এই ছবিটি তৈরি করেছেন। স্কুলে গরমের ছুটি থাকায় ছোট ছোট পড়ুয়াদের নিয়েই ছবিটি তৈরি করেছেন। তাঁর এই ছবি করতে খরচ হয়েছে মাত্র দশ ‌হাজার টাকা। 
জলপাইগুড়ি পুরসভার জেসি বোস লেনের বাসিন্দা অভিরূপের এই কাজের কথা শুনে গর্বিত তাঁর প্রতিবেশীরা। উচ্ছ্বসিত জলপাইগুড়ি শহরের সংস্কৃতিপ্রেমী মানুষও। খুদে শিল্পীদের অসাধারণ অভিনয়ে দারুণভেবে ফুটে উঠেছে পাগলা দাশু ছবিটি। ছবিতে ব্রজলাল–‌সহ রয়েছে শিশুদের বিভিন্ন চরিত্র। ইতিমধ্যেই ছবির ট্রেলার তৈরি হয়ে গেছে। এখন চলছে চূড়ান্ত এডিটিংয়ের কাজ। বাকি কাজ শেষ হয়ে গেলেই ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হবে ছবিটি। অনেক ছোট থেকেই এধরণের কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে অভিরূপের। ২০১৩ সালে একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ক্যামেরা দিয়ে নন্টে ফন্টের সিনেমাও তৈরি করেছিলেন অভিরূপ। এবার তিনি তৈরি করছেন সুকুমার রায়ের কাহিনী অবলম্বনে ‘‌পাগলা দাশু’‌। সম্পূর্ণ ছবিটি একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল দিয়ে ক্যামেরাবন্দী করা হয়েছে। বাড়ির কম্পিউটারে এডিটিংও নিজেই করছেন অভিরূপ। আর কিছুদিনের মধ্যেই এডিটিংয়ের কাজ শেষ হয়ে যাবে।
তরুণ পরিচালক অভিরূপ জানান, ছবিটির মূল শুটিং করতে সময় লেগেছে মাত্র পাঁচদিন। সব মিলিয়ে দশ জন ছোট ছোট ছেলে–‌মেয়ে অভিনয় করেছে এই ছবিতে। ছবির শুটিং হয়েছে জলপাইগুড়ি শহরের বিভিন্ন এলাকায়। এই নিয়ে খেলার ছলে পাঁচটি ছবি তৈরি করেছেন অভিরূপ। আগামীদিনেও মোবাইল দিয়ে ছোটদের নিয়ে আরও ভাল কিছু সিনেমা তৈরির ভাবনা রয়েছে অভিরূপের।

‌নির্মীয়মাণ ছবি ‘‌পাগলা দাশু’‌র পোস্টার। ছবি:‌ প্রতিবেদক 
 

জনপ্রিয়

Back To Top