আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌বিভাগীয় অনুমতি ছাড়া মুখে দাড়ি কেন?‌ এক সাব–ইনস্পেক্টরকে সাসপেন্ড করার অভিযোগ উঠল উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বিরুদ্ধে। বাগপতের রামালা থানার ঘটনা। মুখে দাড়ি রাখার অভিযোগ উঠেছে ওই থানার ইন্তেজার আলি নামে পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে। কেন সাসপেন্ড করা হয়েছে, সেবিষয়ে বাগপত পুলিশের জনসংযোগ অফিসার মনোজ সিং বলছেন, পুলিশ বিভাগের নিয়ম, শুধুমাত্র শিখরাই দাড়ি রাখার অনুমতি পান, বাকিদের দাড়ি রাখার নিয়ম নেই। কেউ তা রাখতে চাইলে বিভাগীয় অনুমতি নিতে হয়। ইন্তেজারকে নোটিস পাঠিয়ে বলা হয়েছিল অনুমতি নিতে। কিন্তু তিনি তা করেননি। তারপরই বাগপত থানার সুপার অভিষেক সিং বুধবার তাঁর সাসপেনশনের আদেশ দেন। 
এদিকে ইন্তেজারের দাবি, তিনি গত ডিসেম্বর থেকে অনুমতি চেয়ে আসছিলেন, কিন্তু তাকে তা দেওয়া হয়নি। ঘটনাটিকে ধর্মাচরণের অধিকার লঙ্ঘন বলে দাবি করেন অল ইন্ডিয়া ইমাম অ্যাসোসিয়েশনের রাজ্য সভাপতি মৌলানা জুলফিকার। কেন ওই পুলিশকর্মীর আবেদনে কোনও সাড়া দেওয়া হয়নি, প্রশ্ন তোলেন বিরোধী সমাজবাদী পার্টির নেতা সুশীর পাওয়ার। 


 

জনপ্রিয়

Back To Top