আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তিন তালাক দেওয়ার পর স্বামীর বিরুদ্ধে পুলিসে অভিযোগ করতে যাওয়ায় ৫ বছরের কন্যার সামনে গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারল তাঁর স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজন বলে অভিযোগ। উত্তরপ্রদেশের শ্রাবস্তীর গদ্রা গ্রামে ঘটেছে এই ঘটনা। নিহতের পরিজনরা জানান, মুম্বই থেকে ফোনে সইদা নামে ওই গৃহবধূকে তিন তালাক দেন তাঁর স্বামী। গত ৬ আগস্ট অভিযোগ জানাতে স্থানীয় থানায় গেলে অভিযোগ না নিয়েই তাঁকে ফিরিয়ে দেন পুলিস আধিকারিকরা। স্বামীর সঙ্গেই ঘর করতে তাঁকে পরামর্শ দেন। তারপর ১৫ আগস্ট সইদার স্বামী নাসিফকে থানায় ডেকে পাঠিয়ে সতর্ক করা হয়। 
সইদার মেয়ে ফতিমার পুলিসকে দেওয়া বয়ান অনুযায়ী, ‘‌শুক্রবার বাবা নমাজ পড়ে এসে মাকে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে বলে। সে তিন তালাক দিয়েছে মাকে। এরপরই শুরু হয় ঝামেলা। আমার ঠাকুরদা আজিজুল্লাহ, ঠাকুমা হাসিনা, পিসি গুড়িয়া এবং নাদিয়া আসে। বাবা মায়ের চুল ধরে পেটাতে থাকে। পিসিরা কেরোসিন ঢালে মায়ের গায়ে। ঠাকুরদা আর ঠাকুমা মায়ের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।’‌
ঘটনাস্থল থেকে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিস। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পণের দাবিতে বধূ নির্যাতনের ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার হয়নি। সইদার ভাই রফিক জানান, ‘‌পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করেনি। আমি প্রয়োজনে সুপ্রিম কোর্টে যাব।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top