আজকাল ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রের‌ সর্বশেষ গাইডলাইন অনুযায়ী আগামীকাল থেকে আংশিকভাবে স্কুল খুলতে পারে সারা দেশে। করোনা মহামারীর কারণে যা মার্চ মাস থেকে বন্ধ। কিন্তু পরিস্থিতির নিরিখে এখন করোনার প্রকোপ আগের থেকেও অনেক বেশি। ফলত, এবার স্কুল কলেজ খোলার বিষয়ে অতিরিক্ত সাবধানী হতে হচ্ছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষকে। আনলকে চারের নতুন গাইডলাইনে বলা হয়েছে, স্কুলে যতজন শিক্ষক–শিক্ষিকা ও কর্মী রয়েছেন, তাঁদের অর্ধেককে ডাকা হবে। কোন কোন রাজ্য কী কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটা দেখা যাক।
অসমে যদিও ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল খুলছে। কিন্তু নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য কাল থেকেই স্কুল খুলছে। কিন্তু স্কুল আসার জন্য জোর করা হবে না। যারা চাইবে তারা আসবে। এবং সঙ্গে রাখতে হবে বাবা মায়ের অনুমতি পত্র। নাগাল্যান্ডে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য কাল থেকেই স্কুল খুলবে। কনটেনমেন্ট জোনের বাসিন্দা হলে সেই কর্মী বা শিক্ষক–শিক্ষিকাকে স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হবে না। দিল্লি সরকার ৪ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুল খোলার অনুমতি দিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আসতে ঝুঁকি না নিয়ে ১৮ সেপ্টেম্বর ফের নির্দেশ জারি করা হয়। বলা হয়, ৫ অক্টোবর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে স্কুল।     
গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্যে স্কুল বন্ধ থাকবে ২ অক্টোবর পর্যন্ত। তারপর অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে দশম, একাদশ দ্বাদশ আগে খুলবে। হিমাচল প্রদেশে আগামীকাল থেকে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর জন্য স্কুল খোলা হবে। গুজরাট, বাংলা করোনার এই পরিমাণ প্রকোপে বাচ্চাদের মধ্যে সংক্রমণের আশঙ্কায় এখনই স্কুল না খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কর্ণাটক যদিও শুক্রবার জানিয়েছিল যে স্কুল খোলা হবে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য। কিন্তু তারপর সিদ্ধান্ত বদল হয়েছে পরদিনই। এখন খুলছে না স্কুল। দুর্গাপূজা পর্যন্ত ওডিশায় স্কুল বন্ধ। তামিলনাড়ুর শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলেই স্কুল খুলবে। কিন্তু স্কুল খোলার পর শিফট বদলের কোনও ব্যবস্থা রাখা হবে না। কারণ রাজ্যের স্কুলগুলিতে পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য। 

জনপ্রিয়

Back To Top