আবু হায়াত বিশ্বাস
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরের আয়োজন নিয়ে ‌নরেন্দ্র মোদি সরকারকে নিশানা করলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অভ্যর্থনা জানাতে ‘‌নমস্তে ট্রাম্প’‌ আয়োজনের দায়িত্বে রয়েছেন ‘‌ডোনাল্ড ট্রাম্প নাগরিক অভিনন্দন সমিতি’‌। এই সমিতিকে নিয়ে আগেই প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস। এরপর শনিবার দলের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী টুইটে মোদি সরকারের উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়েছেন, ‘‌সমিতির সদস্যরাই জানেন না অন্য কারা ওই সমিতির সদস্য! দেশবাসীর কী জানার অধিকার নেই, কোন মন্ত্র‌ক কত টাকা ওই সমিতিকে দিয়েছে?‌ সমিতির মাধ্যমে সরকার আসলে কী লুকোতে চাইছে?‌’‌ 
‘‌নমস্তে ট্রাম্প’‌ আয়োজনের বিশাল পরিমাণ অর্থের জোগান কে দিচ্ছে, তা নিয়ে আগেই প্রশ্ন তুলেছিল কংগ্রেস। নাগরিক অভিনন্দন সমিতি কবে তৈরি হল, কী তাদের রাজনৈতিক বা সামজিক পরিচয়, ওই সমিতিই গোটা অনুষ্ঠানের ব্যয়ভার বহন করছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে রাজনৈতিক মহলে। গতকালই কংগ্রেস নেতা আনন্দ শর্মা অভিযোগ করেছিলেন, সরকারি ব্যয়কে বেসরকারি বলে চালাতেই ছদ্মনামের আশ্রয় নিয়েছে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার। কংগ্রেস নেতা বলেছিলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলছেন, মোদি তাঁকে জানিয়েছেন, ১ কোটি লোক তাঁকে স্বাগত জানাবেন। অথচ এর আয়োজক ট্রাম্প নাগরিক অভিনন্দন সমিতি! যার নেপথ্যে কে, কেউ জানে না। অথচ সব খরচ সরকারের! নরেন্দ্র মোদি কেন বুক ঠুকে বলছেন না, তাঁর বন্ধুর জন্য খরচ করছেন?’ 
এদিন, বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র বলেছেন, ট্রাম্পের সফর নিয়ে সঙ্কীর্ণ রাজনীতি করছেন কংগ্রেস নেতারা। আন্তর্জাতিক স্তরে ভারতের মান বেড়েছে। সেটা কিছুতেই সহ্য হচ্ছে না কংগ্রেসের।  আসলে যখনই দেশের ভাল কিছু হয় তখনই কংগ্রেসের কষ্ট হয়। বিজেপি মুখপাত্র বলেছেন, ‘‌মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য ও প্রতিরক্ষা চুক্তি হতে চলেছে আগামী দিনে। ইউপিএ আমলে এটা ভাবনারও বাইরে ছিল। কংগ্রেস আত্মসমীক্ষার বদলে প্রশ্ন করছে। ইউপিএ আমলে কি মনমোহন সিংকে প্রতিপক্ষ দেশগুলির সঙ্গে এমন ভাল সম্পর্ক করতে অনুমতি দিয়েছিল ১০ জনপথ?‌’‌ কিন্তু আয়োজক সমিতিটির সম্পর্কে কোনও তথ্য দেননি তিনি।
এদিকে, টুইটারে কংগ্রেস প্রচার শুরু করেছে হ্যাশট্যাগ ‘‌জুমলা ৭ মিলিয়ান কা’‌‌। মোদি সরকারকে বিঁধে একটি ব্যঙ্গাত্মক টুইটে লেখা হয়েছে, ‌নাগরিক অভিনন্দন সমিতি লোক চাইছে। যাঁদের কাজ হবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হাত নাড়ানো। শূন্য পদের সংখ্যা ৬৯ লক্ষ। মাইনে -‌ অচ্ছে দিন। তারিখ-‌ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০। দুপুর ১২টা। ইন্ডিয়ান রোড শো, মোতেরা স্টেডিয়ামে। ইতিমধ্যেই এই টুইটটি ভাইরাল হয়েছে। কর্মসংস্থানে মোদি সরকারের ব্যর্থতাকেই ব্যঙ্গ করা হয়েছে এই টুইটের মাধ্যমে। বোঝানোর চেষ্টা হয়েছে, যেখানে দেশের বিপুল সংখ্যক মানুষ বেকার, সেখানে মার্কিন রাষ্ট্রপতির জন্য লোক জড়ো করা কঠিন হবে না!‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top