আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ চুরি করে গোটা মুদি দোকান সাফ করে দিয়েছিল চোর। একমাস কেটে গেলেও তার টিকিও ছুঁতে পারেনি পুলিস। এমনকি চোরের সন্ধান করার ব্যাপারে হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন পুলিস আধিকারিকরা। কিন্তু শেষপর্যন্ত আর পার পেল না চোরবাবাজি। চুরির সময় ফেলে যাওয়া আধার কার্ডই ধরিয়ে দিল তাকে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনে। জানা গিয়েছে, গত জুন মাসে অনিল শেঠি নামে এক ব্যক্তির মুদি দোকানে চুরি হয়। দোকানে টিনের চাল ভেঙে রাতের বেলা ভিতরে ঢোকে চোর। দোকানের প্রায় সব জিনিসই খোয়া গিয়েছিল। ঘটনার পর পরই পুলিসে অভিযোগ জানান ওই ব্যবসায়ী। দোকানে লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরাতে চোরের ছবিও ধরা পড়েছিল। কিন্তু তা এতই অস্পষ্ট ছিল যে চোরকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নি। এর পর প্রায় একমাস পেরিয়ে যায়। ফলে তদন্তের গতিও কমে গিয়েছিল। কিন্তু ঘটনার মোড় ঘুরে যায় বুধবার। ওই ব্যবসায়ী তাঁর দোকানের চাল পরিষ্কার করতে যান। তখনই সেখানে একটি মানিব্যাগ খুঁজে পান তিনি। তার মধ্যে ছিল নীরজ নামে এক যুবকের আধার কার্ড। ব্যবসায়ীর বুঝতে অসুবিধে হয়নি যে, এই যুবকই চোর। সঙ্গে সঙ্গে ওই আধার কার্ড পুলিসের হাতে তুলে দেন ওই ব্যবসায়ী। আধার কার্ডে দেওয়া ঠিকানায় হানা দিয়ে অভিযুক্ত নীরজকে না পেলেও তার বর্তমান ঠিকানার হদিশ পেয়ে যায় পুলিস। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই শহরের একটি বস্তি থেকে নীরজকে গ্রেপ্তার করা হয়। জেরা নীরদ স্বীকার করে, ওই দোকান ছাড়াও সম্প্রতি আরও একটি চুরি করেছে সে। অতীত রেকর্ড ঘেঁটে পুলিস জানতে পারে, ২০১২ সালে মোট ৬৫ হাজার টাকা মূল্যের মোবাইল চুরির অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছিল নীরজ।‌

জনপ্রিয়

Back To Top