সংবাদ সংস্থা, হায়দরাবাদ: তেলেঙ্গানায় পুর নির্বাচনে কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের টিআরএস–‌এর জয়জয়কার। ধারেকাছে আসতে পারেনি আর কোনও দল। তবে গত লোকসভা নির্বাচনের পর বিজেপি–‌র দাবি ছিল, রাজ্যে প্রধান বিরোধী দল হয়ে উঠবে তারাই। পুরভোটে পিছিয়ে থাকল কংগ্রেসের চেয়ে। 
রাজ্যের ১২০টি পুরসভার ভোটে ১১০টিতে জয়ী টিআরএস। দ্বিতীয় দল হিসেবে অনেক পেছনে কংগ্রেস, গরিষ্ঠতা পেয়েছে ৪টি পুরসভায়। ১টি করে পুরসভায় জিতেছে বিজেপি এবং আসাদুদ্দিন ওয়াইসির অল ইন্ডিয়া মজলিস–‌ই–‌ইত্তেহাদুল মুসলিমিন— সংক্ষেপে মিম নামেই যা বেশি পরিচিত। এখনও পর্যন্ত যা খবর, ৯টি পুরনিগমের মধ্যে সাতটিতেই জয়ী টিআরএস, অন্য দুটিতেও এগিয়ে। লক্ষণীয়, সদ্য সাম্প্রদায়িক হাঙ্গামা ঘটে যাওয়া ভৈনসা পুরসভাটি জিতেছে মিম। সেখানে ১৫টি আসন পেয়েছে তারা, বিজেপি ৯টি, অন্যান্য ২। প্রধান দুই প্রতিপক্ষেরই নির্ভর ছিল সাম্প্রদায়িক আবেগ। একে অন্যের ভরসা। টিআরএস এখানে একটি ওয়ার্ডেও জিততে পারেনি!‌ ওয়াইসির দলের মূল ঘাঁটিই তেলেঙ্গানায়। হায়দরাবাদ থেকে লোকসভায় যাচ্ছেন তিনি। তবে রাজ্যে আর কোথাও সেভাবে সুবিধে করতে না পারলেও কংগ্রেসের ভোট কাটার কাজটা করে চলেছে মিম। তা না হলে বিজেপি–‌র ফল আরও শোচনীয় হত, বলছেন পর্যবেক্ষকরা। গত লোকসভা নির্বাচনের আগে কংগ্রেস অভিযোগ করেছিল, আসাদুদ্দিনকে সুরক্ষিত রাখছে বিজেপি। সেকারণেই তাঁর বিষয়আশয় নিয়ে কোনও তদন্ত হয় না।
গত লোকসভা নির্বাচনে তেলেঙ্গানার ১৭টি আসনের মধ্যে ৯টিতে জিতেছিলে টিআরএস, ৪টিতে বিজেপি, ৩টিতে কংগ্রেস, ১টিতে মিম। এই ফলে বিজেপি–‌র সোল্লাস ঘোষণা ছিল, দক্ষিণের এই রাজ্যটিতে বিজেপি–‌ই প্রধান বিরোধী দল হয়ে উঠছে। পুরভোটের ফলে সে ছবি ধরা পড়েনি। তবে দ্বিতীয় দল হিসেবে কংগ্রেসও অনেকটাই পিছিয়ে। পুরভোট হয়েছিল গত বুধবার। শনিবার ফল বেরোতে টিআরএস শিবিরে জয়োল্লাস। দলের দাবি, কেসিআর–‌এর সরকারের প্রতিই আস্থা জানাল মানুষ। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top