আজকাল ওয়েবডেস্ক: হোস্টেল ফি বৃদ্ধির বিরুদ্ধে পড়ুয়াদের আন্দোলনের মাঝেই নতুন বিতর্কে জড়াল‌ দিল্লির জওহরলাল নেহেরু ইউনিভার্সিটি। খোদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরেই বিকৃত করা হল স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তি। কালো কালি লেপে দেওয়া হল মূর্তিতে। কে বা কারা এমন ঘটনা ঘটালো, সে বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি। তবে গালমন্দের বহর দেখলেই বোঝা যাবে অসন্তোষ গেরুয়া শিবিরের দিকেই। মূলত বিজেপি ও সঙ্ঘ পরিবারকে নিশানা করেই কটূ কথা লেখা হয়েছে। এদিকে, ক্যাম্পাসের ভিতরে বিবেকানন্দের মূর্তি এভাবে বিকৃত করায় নিন্দায় সরব বিভিন্ন মহল। যদিও জেএনইউ কর্তৃপক্ষ এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে। পাশাপাশি তদন্তের আশ্বাস দিয়ে দোষীদের কড়া শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 
জানা গিয়েছে, সম্প্রতি জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ব্লকের সামনে এই মূর্তি প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছিল। কিন্তু এই লজ্জাজনক ঘটনার পরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আপাতত মূর্তিটি কাপড় দিয়ে ঢেকে দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে দোষীদের খুঁজে বের করার চেষ্টা হচ্ছে। তাঁরা কেউ যদি বিশ্ববিদ্যালের ছাত্র হন, তা হলে কঠোরতম শাস্তি হিসেবে বহিষ্কারও করা হতে পারে। এই ঘটনায় তুমুল সমালোচনা শুরু হয়েছে বিভিন্ন মহলে।
হোস্টেলের ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে গত কয়েক দিন ধরেই উত্তপ্ত ছিল জেএনইউ। কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়ালকে সোমবার পাঁচ ঘণ্টা আটকেও রেখেছিলেন ছাত্রছাত্রীরা। শেষপর্যন্ত ছাত্র বিক্ষোভের মুখে পড়ে ফি বৃদ্ধির হার কমানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তার মধ্যেই দেখা যায়, কেউ বা কারা স্বামী বিবেকানন্দর মূর্তিকে বিকৃত করে দিয়েছে। এদিকে, এই ঘটনা প্রসঙ্গে জেএনইউয়ের ছাত্র সংসদের সভাপতি ঐশী ঘোষ সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘‌এই ঘটনাকে সমর্থন করি না। আমরা আলাপ–আলোচনার মধ্যে সমস্যার সমাধানে বিশ্বাসী। এটা জেএনইউয়ের ছাত্ররা করেনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা কোনও ধরনের গুন্ডামিকে সমর্থন করে না। তবে আন্দোলনকে বিপথগামী করতে নানা ধরনের অপপ্রচার চলছে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top