আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গত কয়েক দিন ধরে দেশে লাগামছাড়াভাবে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ছে। কোনও কোনও শহরে পেট্রোলের দাম সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে। এই নিয়ে মোদি সরকারের দিকে আঙুল তুলছে বিরোধীরা। প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।  তাঁর দাবি, গত কয়েকমাস ধরে কেন্দ্র সরকার যে অতিরিক্ত অন্তঃশুল্ক পেট্রোপণ্যের ওপর চাপিয়েছে, তা প্রত্যাহার করা হোক। সরব হয়েছেন রাহুলও। 
প্রশ্ন উঠছে, জ্বালানি তেলের ওপর কেন্দ্র এবং রাজ্য দুই সরকারই কর বসায়। তাহলে কেন কেন্দ্রকেই কাঠগড়ায় তোলা হচ্ছে? আসলে পেট্রোপণ্যের ওপর করের পরিমাণই ফারাক গড়ে দিয়েছে। রাজ্য সরকারের তুলনায় জ্বালানি তেলে কেন্দ্র অনেক বেশি কর নেয়। 
গতকালই রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র বলেন, ‘‌এই মুহূর্তে প্রতি লিটার পেট্রোলে ৩২.৯০ টাকা ও ডিজেলে ৩১.৮০ টাকা কর এবং সেস নিচ্ছে কেন্দ্র। সেখানে রাজ্য সরকার প্রতি লিটার পেট্রোলে মাত্র ১৮.৪৬ টাকা ও প্রতি লিটার ডিজেলে ১২.৫৭ টাকা কর নিচ্ছে।’‌ বিরোধীদের দাবি, পেট্রোল–ডিজেল থেকে কেন্দ্রের আয় রাজ্যের সরকারের তুলনায় অনেক বেশি। তাই কেন্দ্রেরই উচিত করের পরিমাণ কমিয়ে পেট্রোল–ডিজেলের দাম নিয়ন্ত্রণ করা। 
ইতিমধ্যে রাজস্থান, ছত্তিশগড়ের সরকার জ্বালানি তেলের ওপর করছাড় দিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল সরকারও এক টাকা করে সেস কমিয়েছে। তবে এত কিছুর পরেও কেন্দ্র সরকার এই নিয়ে মুখ খোলেনি। 

জনপ্রিয়

Back To Top