আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এনসেফ্যালাইটিসে শিশুমৃত্যু নিয়ে জেরবার বিহারের মুজাফ্‌ফরপুরের শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল বা এসকেএমসিএইচ–এ এবার মিলল নরকরোটি এবং হাড়গোড়। শনিবার সকালে হাসপাতালের পিছনের জঙ্গলে কয়েকশো মানুষের ভাঙা খুলি, টুকরো হওয়া হাড়গোড় এবং কিছু আধপোড়া দেহাবশেষ উদ্ধার হয়। খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছয় তদন্তকারী দল। প্রাথমিক তদন্ত শেষে মুজাফ্‌ফরপুরের আহিয়াপুরের এসএইচও সোনাপ্রসাদ সিং জানান, ওই খুলি এবং হাড়গোড়গুলি অশনাক্ত হওয়া মানুষদের মৃতদেহের। পুরো ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বিহারের স্বাস্থ্য দপ্তর। জেলাশাসক অলোক রঞ্জন প্রশাসন এবং হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট বিভাগের কাছ থেকে রিপোর্ট তলব করেছেন।  
চিকিৎসক বিপিন কুমার হাড়গোড় মেলার কথা স্বীকার করে বলেন, হাসপাতালের অধ্যক্ষই এব্যাপারে বিস্তারিত বলতে পারবেন। পরে এসকেএমসিএইচ–র সুপার এসকে সাহি সাংবাদিকদের বলেন, ওই হাড়গোড়গুলি সম্ভবত হাসপাতালের ময়নাতদন্ত বিভাগের বর্জ্য পদার্থ। তবে এভাবে খোলা জায়গায় মানুষের হাড়গোড় ফেলাকে অমানবিক কাজ বলেই মনে করছেন সুপার। তিনি বলেছেন, এব্যাপারে অধ্যক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে তাঁকে তদন্ত কমিটি গঠন করতে বলবেন। হাসপাতালের কেয়ারটেকার জনক পাসোয়ান বলেছেন, ‘‌ময়নাতদন্তের পর সব দেহই হাসপাতালে পিছনের জঙ্গলে ছুড়ে ফেলা হয়। আমি কখনও এব্যাপারে কর্তৃপক্ষকে কিছুই জিজ্ঞেস করিনি।’‌ তদন্তকারীরা বলেছেন, ওই হাড়গোড়গুলি পোড়ানো হয়নি বা কবর দেওয়া হয়নি।
এদিকে মুজাফ্‌ফরপুরে এনসেফ্যালাইটিসে শনিবার পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৮ জন। শুধু এসকেএমসিএইচ হাসপাতালেই এপর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১০৮ জনের। কেজরিওয়াল হাসপাতালে মৃত ২০ জন।
ছবি:‌ এএনআই

জনপ্রিয়

Back To Top