আজকালের প্রতিবেদন: মোদি‌ভজনায় ভক্তরা সরব। এমনকী বিজেপি–‌ছুট শত্রুঘ্ন সিনহার গলাতেও অন্য সুর। টুইটারে শটগান লিখেছেন, ‘সত্যি বলার জন্য আমি কুখ্যাত। এটা মানতেই হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী, আপনার ১৫ আগস্ট লালকেল্লার ভাষণ ছিল অত্যন্ত সাহসী, গবেষণালব্ধ ও চিন্তাচেতনামূলক। দেশের প্রধান সমস্যাগুলোকে তুলে ধরেছেন। সুন্দর ভাবে।’‌ লোকসভা নির্বাচনের আগে এই শত্রুঘ্নই কটাক্ষ করে বলেছিলেন, ‘‌বিজেপি টু ম্যান আর্মি, ওয়ান ম্যান শো।’‌
মোদিস্তুতিতে সবাইকে পাল্লা দিয়েছেন উত্তর–‌‌পশ্চিম দিল্লি থেকে নির্বাচিত সুফি গায়ক হংসরাজ হংস। জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে এক‌ অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনি বলেছেন, ‘জেএনইউ–‌র নাম বদলে এমএনইউ অর্থাৎ মোদি নরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় করা উচিত।’‌ হংসরাজ বলেন, ‘‌পূর্বসূরিদের ভুলের খেসারত দিতে হচ্ছে আমাদের। অতীতে ‌জম্মু–‌‌কাশ্মীর বিষয়ে ভুল পদক্ষেপ করেছিলেন জওহরলাল নেহরু।’‌ 
ওদিকে, দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিওলে পাক সমর্থকদের মোদি–‌বিরোধী স্লোগানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান বিজেপি নেত্রী সাজিয়া ইলমি। গত শুক্রবারের ঘটনা। একটি সম্মেলনে যোগ দিতে সিওল গিয়েছিলেন সাজিয়া–‌‌সহ কয়েকজন বিজেপি নেতা। সমাবেশ শেষে ভারতীয় দূতাবাসে যান তাঁরা। হোটেলে ফেরার পথে দেখেন, একদল পাকিস্তান সমর্থক রাস্তায় জমায়েত করে ভারত ও নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছেন। তখনই সেখানে নেমে প্রতিবাদ করেন সাজিয়া। দেশে ফিরে তিনি বলেছেন, ‘‌আমাদের প্রধানমন্ত্রীকে অপমান করা হচ্ছিল, মেনে নেব কী করে?‌’‌ পাক সমর্থকদের সাজিয়া বলেছেন, ‘‌জম্মু ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিল করা নিয়ে তোমাদের সমস্যা কীসের?‌ এটা তো আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।’‌ সংবাদ সংস্থা এএনআই একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, সাজিয়া এবং তাঁর সঙ্গীরা গাড়ি থেকে নেমে জমায়েতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top