আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌দীর্ঘ ১৩৪ বছর। ঐতিহাসিক অযোধ্যা জমি বিতর্ক মামলার আইনি লড়াইয়ে ইতি টানলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। ঐতিহাসিক এই মামলার রায়কে সব পক্ষই স্বাগত জানিয়েছেন। সকলেই এক সুরে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন। প্রায় পাঁচ শতাব্দী ধরে চলে আসছে অযোধ্যা বিতর্ক। সেই মামলায় রায় দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতে রামমন্দির তৈরি হবে। বিকল্প হিসাবে পাঁচ একর জমি পাবে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। দীর্ঘ শেষ ১৫০ বছর ধরে লড়াই চালানোয় নির্মোহী আখাড়াকে অযোধ্যা মামলার অন্যতম পক্ষ হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছে শীর্ষ আদালত। রাম জন্মস্থান মন্দিরের জন্য যে ট্রাস্ট গঠন করা হবে, সেই বোর্ডেও নির্মোহী আখাড়ার প্রতিনিধি থাকবে। এই মামলাকে স্বাগত জানালেও ঐতিহাসিক রায়ে খুশি নয় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। 
অন্যদিকে সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে রাজনৈতিক নেতা থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সকলেরই এক সুর লক্ষ্য করা গিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘দেশের বিচার ব্যবস্থার ওপর আস্থা ভরসা আরও বাড়িয়ে দিল এই রায়। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীও এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, ‘এটা একটা ঐতিহাসিক রায়। জন সাধারণকে শান্তি বজায় রাখার আবেদন করছি।’ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গডকরি বলেন, ‘প্রত্যেকের এই রায় মেনে নেওয়া উচিত এবং শান্তি বজায় রাখা উচিত।’‌ বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্টের রায়কে প্রত্যেকের স্বাগত জানানো উচিত। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার ক্ষেত্রে এই রায় উপযুক্ত। এর পরে এই ইস্যুতে আর বিতর্ক থাকা উচিত নয়। এটাই আমি প্রত্যেকের কাছে আবেদন করতে চাই।’ 

জনপ্রিয়

Back To Top