আজকাল ওয়েবডেস্ক: শেষ পর্যন্ত বিরোধীদের চাপে বৃহস্পতিবার চীন ইস্যু নিয়ে জবাব দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। তবে রাজ্যসভায়। বললেন, আগের মতোই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা ঘিরে টহলদারি চালাবে ভারতীয় সেনা। ‘‌পৃথিবীর কোনও শক্তি ভারতীয় সেনার টহলদারিতে (পেট্রোলিং) বাধা দিতে পারবে না।’‌
রাজনাথ স্পষ্টভাষায় এও বলেন, চীনের চুক্তিভঙ্গের কারণেই লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা বেড়েছে। তিনি বলেন, ‘এলএসি–র পুরনো পোস্টগুলোতে ভারতীয় সেনাকে টহলদারিতে বাধা দিয়েছে চীনা ফৌজ। সে কারণেই সংঘাত।’‌ 
রাজ্যসভায় এ দিন কংগ্রেস সাংসদ তথা প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি জিজ্ঞেস করেন, চীনা বাহিনীর এলএসি লঙ্ঘনের পর পুরনো পথে ভারতীয় সেনা আর টহলদারি চালাতে পারবে কি না। জবাবে রাজনাথ সিংহ বলেন, ‘পুরনো পথে ভারতীয় সেনার টহল কেউ রুখতে পারবে না।’‌
মঙ্গলবার লোকসভায় লাদাখে ভারত–চীন সংঘর্ষ নিয়ে বক্তব্য রাখেন রাজনাথ সিং। বুধবার লোকসভায় বিরোধী নেতা কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরিকে এই নিয়ে বক্তব্য রাখার অনুমতি দেননি স্পিকার ওম বিড়লা। বলা হয়, বিষয়টি ‘‌সংবেদনশীল’‌। তাই এই নিয়ে আলোচনা সম্ভব নয়। তাতেই বিরোধীরা লোকসভা ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। 
তাতেই কিছুটা হলেও চাপে কেন্দ্র। তাই এদিন রাজ্যসভায় চীন সংঘর্ষ নিয়ে বক্তব্য পেশ করতে চলেছেন রাজনাথ। বিরোধী কংগ্রেস বারবার পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রকে তোপ দেগেছে। রাহুল গান্ধী এই অভিযোগও করেছেন, যে ভারতের জমি কেড়ে নিয়েছে চীন। সেই জমি ফিরিয়ে আনা হোক। সরকার যদিও সেই নিয়ে এতদিন কুলুপ এঁটে বসেছিল। শুধু সেনা বিভিন্ন সময়ে বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, পূর্ব লাদাখে আদতে কী ঘটছে। চীন যে আগ্রাসন চালাচ্ছে, ভূখণ্ড দখলের চেষ্টা করছে, সে কথাও জানিয়েছে সেনাই। 
অবশেষে মঙ্গলবার লোকসভায় মুখ খোলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ। বলেন, ভারত ‘‌সার্বভৌমত্ব ইস্যু নিয়ে খুবই কঠোর’‌। এটি রক্ষা করার ক্ষেত্রেও সমস্ত রকম পদক্ষেপ করবে। যদিও বিরোধীদের প্রশ্নের জবাব তিনি দিতে চাননি। সেই নিয়েই বাধে গোল। এবার রাজ্যসভাতে প্রশ্নের জবাব দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। 

জনপ্রিয়

Back To Top