‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘ঐক্যের মূর্তি’ উন্মোচন করবেন ৩১ অক্টোবর। সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের এই মূর্তি বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু মূর্তি হতে চলেছে বলে খবর। মূর্তি স্থাপনের কাজ ৮৫ শতাংশেরও বেশি শেষ হয়ে গিয়েছে। নর্মদা নদীর কাছাকাছি সর্দার সরোবর বাঁধের কাছে স্থাপিত হচ্ছে এই বিশাল মূর্তিটি। এখন চলছে মূর্তিতে মাথা বসানোর কাজ। কিন্তু এই বিশাল শিল্পের নৈপুণ্যের পিছনে কারিগর হিসাবে রয়েছেন রাম ভি সুতার। পদ্মভূষণ পুরষ্কারপ্রাপ্ত ৯২ বছর বয়সি এই কারিগর তৈরি করেছেন এই মূর্তিটি। এর আগেও বহু মূর্তি তৈরি করেছেন রাম। সংসদ ভবনে অবস্থিত মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিটিও তাঁরই তৈরি। সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মজয়ন্তী ৩১ অক্টোবর। সেদিনই বিশ্বের এই সর্বোচ্চ মূর্তির উদ্বোধন করা হবে। 
১৮২ মিটার উচ্চতার এই মূর্তি তৈরি করে একতা এবং সততার চিহ্ন রাখতে চাইছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ২০১৩ সালে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় এই মূর্তি গড়ে তোলার কথা ঘোষণা করেছিলেন নরেন্দ্র মোদি। যা এখন বাস্তবায়িত হতে চলেছে। এই বিষয়ে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি জানান, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিজেপি কর্মীরা লোহা, মাটি এবং জল সংগ্রহ করেছে এই মূর্তি নির্মানের জন্য। ঐক্যের মূর্তি তৈরি করতেই এই কাজে হাত লাগানো হয়েছে বলে তাঁর দাবি। 
গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, ‘‌কংগ্রেস সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলকে কোণঠাসা করে দিয়েছিল। তাঁর কাজ গোটা দেশে ছড়িয়ে দিতেই এই ঐক্যের মূর্তি গড়ে তোলা হচ্ছে। যখন কিছু মানুষ দেশের ঐক্য ভাঙতে চাইছে।’‌ বিজয় রূপানি কংগ্রেসকেই আক্রমণ করতে এই মন্তব্য করেছেন বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top