আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আবার যোগীর রাজ্য। আবার হাথরস। এবার জামিনে ছাড়া পেয়ে নির্যাতিতার বাবাকেই খুন করল অভিযুক্ত। প্রকাশ্য দিবালোকে। এত কিছুর পরেও মূল অভিযুক্ত অধরা। 
দিল্লি থেকে মাত্র ২০০ কিলোমিটার দূরে ঘটে গেল এই ঘটনা। হাথরসের পুলিশ প্রধান বিনীত জয়সওয়াল একটি ভিডিও বিবৃতি দিয়ে জানালেন, ২০১৮ সালের জুলাই মাসে গ্রামের এক তরুণীকে যৌন হেনস্থা করে গৌরব শর্মা। নির্যাতিতার বাবা তার বিরুদ্ধে এফআইআর করেন। সেই এফআইআর–এর ভিত্তিতে গ্রেপ্তার হয় গৌরব। যদিও স্থানীয় আদালত এক মাস পরেই জামিন দেয় তাকে। সেই থেকে জেলের বাইরে গৌরব।
সোমবার গৌরবের স্ত্রী এবং এক কাকিমা গ্রামের মন্দিরে গেছিলেন। সেখানেই তাঁদের সঙ্গে দেখা হয়ে যায় নির্যাতিতার। সঙ্গে ছিলেন তাঁর বোনও। দুই পরিবারের মহিলাদের মধ্যে তুমুল বিবাদ শুরু হয়। মধ্যস্থতা করতে আসেন নির্যাতিতার বাবা। তখনও তাঁর ওপর চড়াও হয় গৌরব। নিজের পরিবারের কয়েক জনকে ডেকে পাঠায় সে। রাগের মাথায় নির্যাতিতার বাবাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। মারা যান ওই ব্যক্তি। 
একটি ভিডিও–তে দেখা গেছে, নির্যাতিতা থানার সামনে বসে কাঁদছেন। বাবার খুনের বিচার চাইছেন। অভিযুক্ত গৌরব শর্মাকে গ্রেপ্তারের দাবিও তুলেছেন। এক স্থানীয় সাংবাদিক সেই ভিডিও রেকর্ড করেছেন। এই ঘটনার পর গৌরবের এক আত্মীয়কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। যদিও সে অধরা। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ দ্রুত অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন। জানিয়েছেন, দোষীরা শাস্তি পাবে। 
গত সেপ্টেম্বরে এই হাথরসেই ২০ বছরের এক দলিত তরুণীকে গণধর্ষণ করে জিভ ছিঁড়ে নেয় চার উচ্চবিত্ত যুবক। পরে হাসপাতালে মৃত্যু হয় তরুণীর। পরিবারের অমতে পুলিশ দাহ করে দেয় দেহ। সিবিআই চার জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চার্জ এনেছে। যদিও পুলিশ দাবি করেছিল, তরুণীর ধর্ষণ হয়নি। 

জনপ্রিয়

Back To Top