আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশে আয়কর দেন মাত্র এক শতাংশ ভারতীয়। অর্থাৎ তাঁরাই মূলত করযোগ্য আয়ের আওতায় পড়েন। লোকসভায় এই তথ্য দিয়েছে মোদি সরকার। গত ২০১৮–১৯ অর্থ বর্ষ থেকে ফেব্রুয়ারি ২০২০ পর্যন্ত মাত্র ৫.‌৭৮ কোটি আয়কর রিটার্নের আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে ১.‌৪৬ কোটি ভারতীয় জানিয়েছেন, তাঁদের বার্ষিক রোজগার করযোগ্য আয় অর্থাৎ ৫ লাখের বেশি। সংসদে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ সিং ঠাকুর। চলতি অর্থবর্ষেই নিয়ম হয়েছে, যাঁদের বার্ষিক আয় ৫ লাখের কম, তাঁদের আয়কর দিতে হবে না!‌ দেশে কর আদায় দিনে দিনে কমার পেছনে কর ফাঁকিই মূল কারণ, বলছেন বিশেষজ্ঞরা। 
সরকারের দাবি, করফাঁকি রুখতে আয় মূল্যায়ণ, সমীক্ষা, তদন্ত, বাজেয়াপ্তকরণ, জরিমানা সহ একাধিক পদক্ষেপ ইতিমধ্যেই করেছে সরকার। এছাড়াও ব্যবস্থাপনা আটোসাটো করতে আয়কর দপ্তরের তরফে ক্যাস, এনএমএস, আইবিএ–এর মতো ইলেক্ট্রনিক প্রযুক্তি চালু করা হয়েছে। 
প্রত্যক্ষ করের পাশাপাশি পরোক্ষ করের ক্ষেত্রের করফাঁকির অভিযোগ উঠেছে বহুবার। গত ২০১৭ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে দেখা গেছে, ভুয়ো জিএসটি রিফান্ডের আবেদনের জন্য রপ্তানিকারকদের বিরুদ্ধে ৯০৬টি মামলা দায়ের করা হয়েছে, সংসদীয় নথি সূত্রে খবর। মোট করফাঁকির অঙ্ক ঠেকেছে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকায়। এর থেকে মাত্র ২৯৩ কোটি টাকাই এখনও পর্যন্ত পুনরুদ্ধার করতে পেরেছে কেন্দ্র।   

জনপ্রিয়

Back To Top