আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দিল্লির পরিস্থিতি উদ্বেগ বাড়িয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। পুলিশ–প্রশাসন দিয়ে ঠেকানো যাচ্ছে না অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি। আর এই অবস্থা নিয়ে চর্চাও শুরু হয়েছে বিস্তর। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে তাই বুধবার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে দায়িত্ব দেওয়া হল। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে এবং বিপক্ষে থাকা আন্দোলনকারীদের মধ্যে চলা সংঘর্ষে তিনদিন ধরে জ্বলছে রাজধানী। আর তার জেরে প্রাণ গিয়েছে ২০ জনের। ১৫০ জন আহত। 
সরকারি সূত্রে খবর পাওয়া যাচ্ছে—দায়িত্ব পাওয়ার পরই অজিত দোভাল পরিদর্শন করেছেন অগ্নিগর্ভ এলাকায়। জাফরাবাদ, সিলামপুর–সহ উত্তর–পূর্ব দিল্লির একাধিক জায়গায় ঘুরেছেন তিনি। কথা বলেন একাধিক সম্প্রদায়ের মানুষ ও নেতার সঙ্গে। তারপর সেই রিপোর্ট পেশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং তাঁর মন্ত্রিসভার কাছে। তাহলে কী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ওপর ভরসা রাখতে পারলেন না মোদি?‌ উঠছে প্রশ্ন। 
জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার রিপোর্টের পর কী হল?‌ সূত্রের খবর, বেশ কয়েকটি এলাকায় নামিয়ে দেওয়া হয়েছে আধা সেনা এবং প্রচুর পরিমাণে পুলিশ। আর পুলিশকে বলে দেওয়া হয়েছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে যা করার তা করতে হবে। অর্থাৎ রইল ছাড়পত্র। সিলামপুরে পুলিশের ডিসিপি অফিসে গিয়ে বৈঠক করেন দোভাল। সেটাও মধ্যরাতে। তারপর থেকে পুলিশের ভূমিকা আগের থেকে তৎপর হয়েছে বলে খবর। দিল্লি পুলিশের বিশেষ কমিশনার এসএন শ্রীবাস্তবের সঙ্গে গিয়েও বৈঠক করেছেন তিনি। ঘুরে দেখেছেন জাফরাবাদ, গোকুলপুরী এবং মৌজপুর। 

জনপ্রিয়

Back To Top