আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এগিয়ে আসছে মৃত্যু। ফাঁসি দেওয়ার লোকও খুঁজে পেয়ে গিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ। আর এদিকে মানসিক অবসাদে ভুগছে নির্ভয়া কাণ্ডের দোষীরা। সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, জেলে নাকি খাওয়া দাওয়াই একেবারে ছেড়ে দিয়েছে মুকেশ, অক্ষয়, বিনয়, পবনরা। ফাঁসির আগেই যাতে তাদের কিছু না হয়ে যায়, সেইজন্য নিরাপত্তাও বাড়ানো হয়েছে তিহার জেলে। চার–পাঁচ বিশেষ নিরাপত্তা রক্ষীও মোতায়েন করা হয়েছে। গত শুক্রবারই তিহার জেলের ডিরেক্টর জেনারেল সন্দীপ গোয়েল জেলের তিন নম্বর কক্ষে গিয়েছিলেন। সেখানেই ২০১২ সালের নির্ভয়ায় কাণ্ডে দোষী সাজাপ্রাপ্তদের ফাঁসি হবে। সেই কক্ষ পরিদর্শন করতে গিয়েছিলেন তিনি, সূত্রের খবর। চার ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড অবিলম্বে কার্যকর করার আর্জি নিয়ে আদালতে গিয়েছিলেন নির্ভয়ার মা-বাবা। ফাঁসির সাজা পুনর্বিবেচনা করার জন্য চার ধর্ষকই আদালতে কাছে পিটিশন দাখিল করেছিল। কিন্তু তাদের আবেদন খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। 
দোষীদের মৃত্যুদণ্ড দ্রুত কার্যকর করার জন্য সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অনলাইনে আবেদন জানান নির্ভয়ার মা আশা দেবী। তিনি জানান, ‘সাত বছর ধরে বিচারের অপেক্ষা করতে করতে আমি ক্লান্ত’‌। তাঁর অভিযোগ, দোষীরা ইচ্ছে করে বিচার প্রক্রিয়ায় দেরি করাচ্ছে। ১৬ ডিসেম্বরের আগেই ফাঁসি হওয়া উচিত। দ্রুত ফাঁসির পক্ষে সওয়াল করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ারল।   ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top