আবু হায়াত বিশ্বাস, দিল্লি: হুঁশিয়ারি নয়, রাস্তা খালি করার জন্য কেবল অনুরোধ করেছিলেন তিনি!‌ দেননি কোনও ভাষণও!‌ দিল্লি দাঙ্গা নিয়ে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এমনটাই দাবি করেছেন বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র। তাঁর বিরুদ্ধে দাঙ্গার আগে ঘৃণা ছড়ানো ও উসকানিমূলক ভাষণ দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। 
উত্তর–‌পূর্ব দিল্লির হিংসা মামলার তদন্তে জুলাইয়ে কপিল মিশ্রকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দিল্লি পুলিশের স্পেশ্যাল সেল।  বিজেপি নেতা দাবি করেন, তিনি উসকানিমূলক কোনও ভাষণ দেননি। এলাকায় গিয়েছিলেন কেবল ‘‌সমাধান’‌ করতে। উত্তর–‌পূর্ব দিল্লির দাঙ্গা সংক্রান্ত চার্জশিটে তা উল্লেখও করেছে স্পেশ্যাল সেল। অথচ, ২৩ ফেব্রুয়ারি উত্তর‌–পূর্ব দিল্লির ডিসিপি বেদ প্রকাশের পাশে দাঁড়িয়ে হুমকি দিতে দেখা যায় বিজেপি–র ওই নেতাকে। সেই হুমকির ভিডিও টুইটারে ছড়িয়েও পড়ে। 
দাঙ্গার ঠিক আগের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, কপিল মিশ্র দিল্লি পুলিশের কর্তাকে হুমকি দিয়ে বলছেন, তাঁরা যদি ক্যা–র‌‌ বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের রাস্তা থেকে হটিয়ে না দেন, তাহলে তাঁরা রাস্তায় নামবেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট  ট্রাম্পের থাকা পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন। তারপরে রাস্তা খালি করা না হলে পুলিশের কথাও শুনবেন না। ভিডিও ও টুইট নিয়ে পুলিশের প্রশ্নের জবাবে কপিল দাবি করেছেন, ‘‌সিনিয়র পুলিশ আধিকারিককে কেবল অনুরোধ করেছিলাম তিনদিনের মধ্যে ক্যা–বিরোধী আন্দোলনকারীদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য। বলেছিলাম, জাফরাবাদ এবং চাঁদবাগের রাস্তা খালি করার জন্য।’‌ কেন তিনি মৌজপুর চকে গিয়েছিলেন, এই প্রশ্নে পুলিশকে কপিল জানিয়েছেন, মৌজপুর চক এলাকার বাসিন্দারা রাস্তা বন্ধ থাকায় সমস্যায় পড়েছিলেন। সেখানকার বাসিন্দাদের ফোন ও ফেসবুক পোস্ট দেখে সেখানে গিয়েছিলেন তিনি। কোনও ভাষণ দেননি। মাত্র ১ ঘণ্টার জন্য তিনি সেখানে একাই গিয়েছিলেন। অথচ, ২৩ ফেব্রুয়ারি ১টা‌ ২২ মিনিটে কপিল নিজে টুইটে জানিয়েছিলেন, ‘আজ ৩টেয় মৌজপুর চকে জমায়েত হবে জাফরাবাদ প্রতিবাদের বিরুদ্ধে এবং ‌ক্যা–‌র সমর্থনে।’ ‌দিল্লি পুলিশের প্রাক্তন আইপিএস অফিসার জুলিও রেবেইরো প্রশ্ন তুলেছিলেন, দিল্লি দাঙ্গার আগে বিজেপি–র যে বড় নেতারা উসকানিমূলক ভাষণ দিয়েছিলেন তাঁদের নাম চার্জশিটে নেই কেন? ফেব্রুয়ারি মাসে রাজধানীতে গোষ্ঠী–সঙ্ঘর্ষে নিহত হন ৫৩ জন। 

জনপ্রিয়

Back To Top