আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌অর্থনীতিতে ঝিমুনি। দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার আরও কমে যাওয়ার আশঙ্কা। নোটের বাতিলের তিন বছর পূর্তিতে ভারতীয় অর্থনীতির নেতিবাচক দিকটি উল্লেখ করে মোদি সরকারের অন্দরে কাঁপুনি ধরাল মুডিস ইনভেস্টর সার্ভিসের সমীক্ষা। মুডিসের সমীক্ষা থেকে জানা যাচ্ছে, ভারতের অর্থনীতি যেখানে এতদিন স্থিতিশীল ছিল, সেই অর্থনীতির অভিমুখ এখন নিম্নগামী। শুধু মুডিসই নয়, ভারতীয় অর্থনীতি সম্পর্কে নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে মোদি সরকারের উদ্বেগ বাড়িয়েছে ব্রোকারেজ সংস্থা নোমুরাও। এই সংস্থার সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে, চলতি অর্থবর্ষেই ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার আরও কমে ৪.‌৯ শতাংশ হতে পারে। চলতি অর্থবর্ষের প্রথম তিন মাসেই আর্থিক বৃদ্ধির হার ৫ শতাংশে এসে পৌঁছেছিল। আগামী দিনে আরও কমে যাওয়ার আশঙ্কা করছে মুডিস এবং নোমুরার সমীক্ষা। 
অর্থনীতি চাঙ্গা করতে সম্প্রতি একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কেন্দ্রের মোদি সরকার। কমিয়ে দেওয়া হয়েছে করের বোঝা। কিন্তু তাতেও পরিস্থিতি খুব একটা বদলায়নি। মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তে ক্ষতির পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে দাবি মুডিসের। সংস্থার দাবি, করের বোঝা কমানোর ফলে রাজকোষে ঘাটতি দেখা দিতে পারে। ফলে সেক্ষেত্রে বাড়বে ঋণের বোঝাও। বিগত কয়েকদিনে সুদের হার বেশ কয়েকবার কমিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। লগ্নি বাড়াতে এই নীতি দেশে স্ট্যাগফ্লেশন পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে যেখানে দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার মূল্যবৃদ্ধির চেয়ে কম হবে।  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top