‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এবার প্রাক্তন মৌনীমোহন প্রধানমন্ত্রীই বর্তমান নীরব প্রধানমন্ত্রীকে বার্তা দিলেন। দাবি তুললেন, এই সরকারের পতনের সময় এসে গিয়েছে। এবার কেন্দ্রে পরিবর্তন আনতে হবে। না হলে দেশ রসাতলে যাবে। কারণ কেন্দ্রের এই সরকার দেশের সব সীমারেখা অতিক্রম করে গিয়েছে। রামলীলা ময়দানে কংগ্রেসের ধর্ণা মঞ্চে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী একহাত নেন নরেন্দ্র মোদি সরকারকে। তিনি বলেন, এই সরকার এমন অনেক কাজ করেছেন যে কাজ নিয়ে দেশ বা জাতির কোনও আগ্রহই নেই। অথচ যে কাজ করার দরকার ছিল সেই কাজ করতে পারেনি নরেন্দ্র মোদির সরকার। সেই কাজ করতে জানে না এই সরকার। তাই দেশজুড়ে পেট্রোপণ্যের মূল্য আজ আকাশছোঁয়া।
তিনি বলেন, অপরিশোধিত তেলের দাম অপেক্ষাকৃত কম থাকা সত্ত্বেও ভারতের বাজারে পেট্রোপণ্যের দাম প্রতিনিয়ত বাড়ছে। প্রত্যেকদিন এই দামবৃদ্ধি মানুষকে নাকাল করে ছাড়ছে। এই অবস্থায় বর্তমান সরকারের আর ক্ষমতায় থাকার অধিকার নেই। তাই এই সরকারের পতন ঘটিয়ে দেশে পরিবর্তন আনার দরকার। বিজেপি বিরোধী সমস্ত দলই এই মঞ্চে হাজির হন। মোদি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মিলিত হয়ে। নোট বাতিল থেকে শুরু করে জিএসটি, বেকারত্ব থেকে রাফাল–সহ মোদি সরকারের দেওয়া মিথ্যা প্রতিশ্রুতির বিরুদ্ধে সরব হন বিরোধী দলগুলি। 
মনমোহন সিং এদিন বলেন, ‘‌কোনও প্রতিশ্রুতি রাখতে পারেনি নরেন্দ্র মোদি সরকার। জনগণের বিশ্বাসভঙ্গ করেছেন আচ্ছে দিনওয়ালা প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু আদতে আচ্ছে দিনের পরিবর্তে তিনি বুরা দিন এনেছেন দেশে। সেই কারণে মূল্যবৃদ্ধিতে নাভিশ্বাস উঠেছে দেশবাসীর। এই অবস্থায় দেশকে রক্ষা করতে হবে। আর তা করতে গেলে একমাত্র উপায় এই সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটানো। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে আমাদের সেই কাজটাই করতে হবে। সকলে মিলিত হয়ে সরকারের পতন ঘটাতে হবে।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top