আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ শ্রমিক স্পেশালের নামে করোনা এক্সপ্রেস পাঠাচ্ছে কেন্দ্র। গাদাগাদি করে রাজ্যে এভাবে শ্রমিক ঢুকতেই থাকলে সংক্রমণ আরও বাড়বে। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেগে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। কেন্দ্রকে আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌মহারাষ্ট্র, চেন্নাই, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লি থেকে ট্রেন আসছে। গাদাগাদি করে শ্রমিকদের নিয়ে আসা হচ্ছে। সামাজিক দূরত্ব কেন মানছে না রেল?‌ কেন বাড়তি ট্রেন দিচ্ছে না?‌ ট্রেনে তো ওঁরা অনেকেই খেতে না পেয়ে মরছে।’‌ 
আগামী রবিবার চতুর্থ দফার লকডাউন শেষ হচ্ছে। দেশজুড়ে লকডাউন আরও বাড়ানো হবে কিনা বা বাড়ানো হলে, কতদিন!‌ ইতিমধ্যেই জল্পনা তুঙ্গে। তার আগেই বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা ১০০% কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করতে পারবে ৮ জুন থেকে। খুলে যাবে চটকল, চা বাগান, পূর্ণ শ্রমিক ক্ষমতা নিয়েই। একই সঙ্গে খুলবে বাংলার সব ধর্মীয় স্থান। তবে একসঙ্গে ১০ জনের বেশি দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারবেন না। শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘‌রাজ্যে মন্দির, মসজিদ, গুরুদ্বার, গির্জা ১ জুন থেকে খুলবে। তবে দশ জনের বেশি দর্শনার্থী একসঙ্গে প্রবেশ করতে পারবেন না। কোনও ধর্মীয় সমাবেশও করা যাবে না।’‌ 
১ জুন থেকে রাজ্যের সব চা বাগান ও চটকল খুলে যাবে ১০০% কর্মী নিয়ে। সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাগুলিও পুরো কর্মীসংখ্যা নিয়ে কাজ শুরু করতে পারবে ৮ জুন থেকে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌গত দু’‌মাসে পশ্চিমবঙ্গ করোনা সংক্রমণ সাফল্যের সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছে। এখন বাইরে থেকে রাজ্যে লোক আসায় সংক্রমণের সংখ্যাটা একটু বেড়েছে।’‌  

জনপ্রিয়

Back To Top