আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিয়ের জন্য ক্রমাগত চাপ দিচ্ছিল প্রেমিকা। উপায় না পেয়ে শেষমেশ তাঁকে খুন করার সিদ্ধান্ত নিল প্রেমিক। ৩২ বছরের প্রেমিকাকে খুন করে নিজের ফ্ল্যাটের দেওয়ালের ভিতরে লুকিয়ে রাখল সেই দেহ। তারপর বহাল তবিয়তে বাসও করল সেখানে। এমনই মানসিক বিকারগ্রস্ত খুনির সন্ধান মিলল মহারাষ্ট্রের পালঘরে। গত অক্টোবরে নিজের প্রেমিকাকে খুন করেছিল সে। কয়েক মাস পরে অবশেষে পড়তে হল পুলিশের জালে। তার ফ্ল্যাট থেকে নিহত যুবতীর কঙ্কাল উদ্ধার হওয়ার পরই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
গত পাঁচ বছর ধরেই ওই যুবতীর সঙ্গে প্রেম ছিল অভিযুক্ত ৩০ বছরের যুবকের। ক্রমে তাকে বিয়ের জন্য চাপ দেওয়া শুরু করে প্রেমিকা। চাপ বাড়তে থাকলে যুবতীকে খুনের মতলব আঁটে অভিযুক্ত। তারপর তাঁকে খুন করে দেহ লুকিয়ে রাখে মহারাষ্ট্রের বনগাঁওয়ে অবস্থিত নিজেরই ফ্ল্যাটের দেওয়ালের ভিতরে। এদিকে মেয়ের কোনও খবর না পেয়ে উদ্বেগ ক্রমশ বাড়তে থাকে নিহত যুবতীর পরিবারের। তাঁরা ওই যুবকের কাছে সে ব্যাপারে খোঁজখবর করলে অভিযুক্ত বলে দেয়, তার প্রেমিকা এখানে নেই। তিনি গুজরাটের ভাপিতে গিয়েছেন। প্রসঙ্গত, গত ২১ অক্টোবরের পর থেকেই আর দেখা যায়নি ওই যুবতীকে। অবশেষে পুলিশের দ্বারস্থ হন তাঁরা। তদন্তে নেমে পুলিশ তল্লাশি চালায় অভিযুক্তর ফ্ল্যাটে। সেখান থেকেই উদ্ধার হয় যুবতীর দেহ। পুলিশের জেরায় ভেঙে পড়ে নিজের অপরাধ কবুল করেছে অভিযুক্ত। তার বিরুদ্ধে খুন ও আরও অন্য ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।
 

জনপ্রিয়

Back To Top