আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গত কয়েকদিন ধরে রাজনীতিতে এমন অদ্ভুত সব ঘটনা ঘটছে তার ব্যাখ্যা কোনওভাবেই দেওয়া সম্ভব নয়। কর্নাটকে উপনির্বাচনের মাত্র কয়েকদিন আগেই কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন রামনগর বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী। অনেকটা সেরকমই ঘটনা এবার ঘটল মধ্যপ্রদেশে। প্রবীণ এক বিজেপি নেতাকে টিকিট না দেওয়ায় প্রকাশ্যেই কেঁদে ফেলেছিলেন তিনি। কয়েক ঘন্টার মধ্যে তাঁকে প্রার্থী করে দিল কংগ্রেস। ফলে টিকিট দিয়ে বিজেপিকে টেক্কা দিয়ে দিল কংগ্রেস বলে মনে করা হচ্ছে।
১৯৯৮ সালে ১৩ দিনের বাজপেয়ী সরকারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ছিলেন সরতাজ সিং। এছাড়াও মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রিত্বের দায়িত্ব সামলেছেন। কিন্তু তাঁকে প্রার্থী করেনি বিজেপি। সরতাজের বয়স ৭৫। এই বয়সে কাউকে আর প্রার্থী করা হবে না। এই ঘটনায় প্রকাশ্যেই কাঁদতে শুরু করে দেন সরতাজ। বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগদান করার ঘোষণাও করেন তিনি। কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁকে প্রার্থী করে দিয়ে তাক লাগিয়ে দেয় রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল। মধ্যপ্রদেশের সিওনি–মালওয়া বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির প্রার্থী হতেন ৭৫ বছরের সরতাজ। এবার তাঁকে টিকিট না দিয়ে বিধানসভার স্পিকার সীতাসরন শর্মাকে প্রার্থী করে দেয় দল। এটা মেনে নিতে পারেননি সরতাজ। দুঃখে কেঁদে ফেলে সরতাজ বলেন, ‘‌আমি ঘরে বসে দমবন্ধ হয়ে মরতে পারব না। আমি শহিদের মৃত্যুবরণ করব।’‌
এদিকে সিওনি–মালওয়া থেকে তখনও কাউকে প্রার্থী করেনি কংগ্রেস। সরতাজ যোগ দেওয়ায় যেন হাতে চাঁদ পেয়ে যায় তারা। এক মুহূর্তও সময় নষ্ট না করে একই কেন্দ্র থেকে তাঁকে হাত চিহ্নে দাঁড় করিয়ে দেয় কংগ্রেস। তাতেই বাজিমাত করা যাবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top