আজকাল ওয়েবডেস্ক: উগ্রপন্থীদের বাড়বাড়ন্তে সমস্ত কাশ্মীরি পণ্ডিতরাই যে উপত্যকা ছেড়েছেন এমন নয়। কেন্দ্রে বিজেপি ক্ষমতায় আসার৷ পর নিরাপত্তা সহ জীবনযাত্রার মান উন্নত হবে বলে আশা করেছিলেন তাঁরা। সে গুড়ে বালি। তাঁদের কোনও রকম সাহায্য করছে না কেন্দ্র সরকার, বলছে প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী যশবন্ত সিংহের নেতৃত্বে গঠিত একটি দল। আর্থিক সহায়তা বা পুনর্বাসনের ক্ষেত্রে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের সঙ্গে বঞ্চনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওই গোষ্ঠীরই এক প্রতিনিধি। 
তিনি জানিয়েছেন, প্রতিটি নির্বাচনে তাঁদের ইস্যু করে গেরুয়া শিবির। বাংলার নির্বাচনেও তাই ঘটছে। অথচ কাজের কাজ কিছু হচ্ছে না। কাশ্মীরি পণ্ডিতরা রয়ে যাচ্ছেন সেই অন্ধকারেই। উলটে শেষ কয়েক বছরে তাঁরা আরও বেশি অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। 
উপত্যকার এক পণ্ডিত সম্প্রদায়ের মানুষ বলছেন, কেন্দ্রের স্মার্ট সিটি প্রোজেক্টের মাধ্যমে নদীর ধারে অবস্থিত বহু হিন্দু মন্দির নতুন করে সাজানো শুরু হয়েছে। কিন্তু তাতে তাদের অংশগ্রহণ করানো হয়নি। গোটা প্রক্রিয়াটাই চলছে মিলিটারি বাহিনীর তত্ত্বাবধানে। বিষয়টি চিন্তার কারণ তাতে তাঁরা আরও বেশি বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন, বলছেন সেই কাশ্মীরি পণ্ডিত। 
কাশ্মীর উপত্যকায় এই হিন্দু সম্প্রদায়ের যে ক'টি পরিবার এখনও রয়ে গেছে, তাদের হাল হকিকত জানতে ৩০ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল এলাকায় ঘুরে বেড়িয়েছে 'কনসার্ন্ড সিটিজেন্স গ্রুপ'। এই দলেরই নেতৃত্বে আছেন যশবন্ত। সঙ্গে আছেন বিভিন্ন ক্ষেত্রে আরও বেশ কিছু নামী ব্যক্তিত্ব।

Back To Top