আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আগামী ৩১ মে শেষ হচ্ছে চতুর্থ দফার লকডাউন। এরপর তা আরও বাড়ানো হবে কি না, সেব্যাপারে এখনও কিছু জানায়নি কেন্দ্র। তবে এসবের মধ্যেই ১ জুন থেকে সমস্ত ধর্মীয় স্থান খোলার ব্যাপারে ভাবনাচিন্তা করছে কর্নাটক সরকার। ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে অনুরোধ করেছেন কর্নাটকের সমস্ত মসজিদ, মন্দির, চার্চ ও অন্যান্য ধর্মীয় স্থান খোলার অনুমতি দেওয়া হোক। বুধবার বিএস ইয়েদুরাপ্পা জানিয়েছেন, ‘ ধর্মীয় স্থান‌ খোলার আগে আমাদের অনেকগুলি অনুমতির প্রয়োজন। তাই আপাতত অপেক্ষা করতেই হবে। তবে অনুমতি পেয়ে গেলে ধর্মীয় স্থানগুলি থোলা হবে ১ জুন  থেকে।’‌ এর আগে গত মার্চে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষণার পর থেকে দেশব্যাপী লকডাউন জারি রয়েছে। সেই সময় থেকেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে অন্যান্য বহু স্থানের মতো বন্ধ রয়েছে ধর্মীয় স্থানগুলিও। পরবর্তী সময়ে যানবাহন, দোকান বা মানুষের চলাফেরার উপরে নিষেধাজ্ঞা কিছুটা শিথিল করা হলেও এখনও পর্যন্ত ধর্মীয় স্থানের উপর থেকে কোনও নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়নি। এর আগে রাজ্যের মন্ত্রী কোটা শ্রীনিবাস পূজারি আশা প্রকাশ করেছিলেন যে জুন মাসে মন্দিরগুলি খুলে দেওয়া হবে। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যকর ভাবেই মন্দিরের পরিবেশ রক্ষা করে তবেই মন্দির খোলার কথা ভাবা হচ্ছে। এদিকে, আগামী বৃহস্পতিবার একটি ক্যাবিনেট বৈঠক রয়েছে। সেখানে মন্দির, মসজিদ, চার্চ সহ সমস্ত ধর্মীয় স্থান খুলে দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হতে পারে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top