আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ইসরো বিক্রম ল্যান্ডারের সমস্যা নিশ্চয়ই সমাধান করে ফেলবে। বুধবার চণ্ডীগড়ে ‘‌নোবেল প্রাইজ সিরিজ ইন্ডিয়া, ২০১৯’‌ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে এই আশাই প্রকাশ করলেন ২০১২ সালে ভৌতবিজ্ঞানে নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী সের্গে হ্যারোশে। যদিও বিক্রমের ঠিক কী হয়েছে সেব্যাপারে কিছুই তিনি জানেন না বলে জানিয়েছেন হ্যারোশে। তবে ৭৫ বছরের নোবেলজয়ীর মতে, ‘‌বিজ্ঞান হচ্ছে সেই জিনিস যেখানে আপনি অচেনা জায়গায় ঢুকছেন, আপনার জন্য চমক থাকবেই। কখনও সেই চমক ভালো কখনও ব্যর্থতা।’‌ হ্যারোশের মতে, যাঁরা এধরনের কাজের সঙ্গে যুক্ত তাঁরা ব্যর্থতা সম্পর্কে পরিচিত। কিন্তু বিক্রম ল্যান্ডারের ব্যর্থতার মূল সমস্যা হচ্ছে তার উপর চেপে বসা ভারতবাসীর প্রবল প্রত্যাশা এবং সংবাদমাধ্যমের অতিরিক্ত নজর। বৈজ্ঞানিক অভিযানের সঙ্গে প্রচুর অর্থ জড়িয়ে থাকে। আর তাই অর্থনীতির আর রাজনীতি মিশে গিয়ে গন্ডগোল হয় বলে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন হ্যারোশে। বিজ্ঞানী বললেন, ‘‌রাজনীতিকদের বুঝতে হবে যে তাঁদের দীর্ঘেয়াদিরূপে অনেক অর্থ লগ্নি করতে হবে গবেষণার জন্য। সব থেকে ভালো বিনিয়োগের স্থান হচ্ছে তরুণ মন। এটা ভারতের নিশ্চিত করা জরুরি যাতে তরুণ প্রজন্ম দেশে ফিরে আসে। কারণ তাদের এখানে দরকার। ভারতে অঙ্ক, ভৌতবিজ্ঞান আর মহাকাশ বিজ্ঞানে ভালো পড়াশোনা সম্ভব।’‌ চন্দ্রাভিযানের মতো বিশাল অভিযান যাতে সংবাদমাধ্যমের নজর থাকে, তেমন না হলেও ছোটছোট বৈজ্ঞানিক অভিযানের জন্য অর্থ বিনিয়োগ করা উচিত বলে মনে করছেন হ্যারোশে।
ছবি:‌ হিন্দুস্তান টাইমস্‌           

জনপ্রিয়

Back To Top