আজকাল ওয়েবডেস্ক: সুশান্তের মৃত্যুরহস্যের তদন্তে পাটনা থেকে মুম্বই যাওয়া এক আইপিএস অফিসারকে জোর করে কোয়ারানটাইন করা হয়েছে। টুইটারে এই অভিযোগ করেছেন বিহার পুলিশের ডিজি গুপ্তেশ্বর পান্ডে। পাটনায় সুশান্তের বাবা কেকে সিং রাজপুতের দায়ের করা এফআইআর–এর ভিত্তিত বিনয় তিওয়ারি নামে ওই আইপিএস অফিসারের নেতৃত্বেই সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুরহস্যের তদন্ত করতে মুম্বই গিয়েছে বিহার পুলিশের একটি দল। রবিবারই মুম্বই পৌঁছয় দলটি। তারপর ওইদিনই রাত ১১টা নাগাদ অফিসার তিওয়ারিকে জোর করে কোয়ারানটাইন করেছেন বিএমসি–র অফিসাররা বলে টুইট পোস্টে অভিযোগ করেছেন গুপ্তেশ্বর পান্ডে। বিনয়ের ব্যাপারে মহারাষ্ট্র পুলিশের ডিজির সঙ্গে তিনি করা বলছেন বলে জানিয়ে গুপ্তেশ্বর বললেন, ‘‌ওরা বলছে ওরা নিয়ম মেনে কাজ করেছে কারণ উনি মুম্বই যাওয়ার আগে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করাননি। আমরা ওখানের ডিজিপি এবং অন্য অফিসারদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালাচ্ছি। এর বেশি আর কিছু বলতে পারব না।’‌
অন্যদিকে বিএমসি–র তরফে সোমবার পাল্টা বলা হয়েছে, মুম্বই বিমানবন্দরে নামা ঘরোয়া উড়ানের যাত্রীদের জন্য গত ২৫ মে মহারাষ্ট্র সরকারের লাগু করা বর্তমান নিয়মানুসারেই বিনয় তিওয়ারিকে কোয়ারানটাইন করা হয়েছে। তাদের সাফাই, ঘরোয়া উড়ানের যাত্রী হিসেবে সরকারি নির্দেশিকা মেনে বিনয়ের হোম–কোয়ারানটাইনে থাকা উচিত।
এদিকে, যে অ্যাম্বুল্যান্সচালক গত ১৪ জুন সুশান্তের মৃতদেহ তাঁর ঘর থেকে নীচে নামিয়ে এনেছিলেন বলে দাবি করেছিলেন, তিনি সম্প্রতি অভিযোগ করেছেন, যে তিনি ওই ঘটনার পর থেকেই হুমকি পাচ্ছেন আন্তর্জাতিক ফোননম্বর থেকে। চালক জানিয়েছেন, ওই দিন মুম্বই পুলিশ তাঁকে অন্য কয়েকজনের সঙ্গেই ভাড়া করে নিয়ে গিয়েছিল দেহ নামাতে। তবে ওই অ্যাম্বুল্যান্সের মালিক পাল্টা দাবি করে বলেছেন, ওই চালক নন, মুম্বই পুলিশের কর্মীরাই অভিনেতার দেহ নীচে নামায়।
ছবি:‌ এএনআই

জনপ্রিয়

Back To Top