তরুণ চক্রবর্তী: ভাই ভালোবেসে বিয়ে করেছে হিন্দু মেয়েকে। এই অপরাধে তার তিন বোনকেই থানায় নিয়ে এসে বর্বরোচিত আক্রমণ করে পুলিশ। তাতে এক বোনের গর্ভপাতও হয়ে যায়। এই নিয়ে শোরগোল পড়ে যাওয়ায় অসমের এই ঘটনায় এক সাব ইনস্পেক্টর ও এক কনস্টেবলকে বরখাস্ত করেছে সরকার। কিন্তু তাদের হয়েই বৃহস্পতিবার সাফাই গাইলেন বিজেপি বিধায়ক শিলাদিত্য দেব। তাঁর মতে, ঠিক করেছে পুলিস। অন্যদিকে, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ বলেছেন, পুলিসের এমন পাশবিক আচরণ তিনি আগে কখনও শোনেননি। 
অসমের দরং জেলার বুরহা ফাঁড়ির ওসি মহেন্দ্র শর্মা ও মহিলা কনস্টেবল বিনীতা বোড়োর পাশবিক আচরণের নিন্দায় সরব গোটা রাজ্যের মানুষ। জাতীয় মানবাধিকার কমিশন তদন্ত শুরু করেছে।  সম্প্রতি ভালবেসে এক সাবালিকা হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করেন স্থানীয় এক যুবক। এই ‘অপরাধে’ তাঁর তিন বোনকে ফাঁড়িতে নিয়ে এসে অত্যাচার চালানো হয়। এক বোন ২ মাস ২২ দিনের গর্ভবতী ছিলেন। পুলিসি অত্যাচারে তাঁর গর্ভপাত হয়। অপর এক বোন বিশেষভাবে সক্ষম। তিনিও রেহাই পাননি। 
অভিযুক্তদের নিন্দা না করে তাদের হয়ে সাফাই গাইলেন বাঙালি বিধায়ক শিলাদিত্য দেব। তাঁর মতে, ‘লাভ জিহাদ’ ঠেকাতে গিয়েছিলেন অভিযুক্ত পুলিস অফিসার। অসম জুড়ে নাকি এখন শুরু হয়েছে লাভ জিহাদের পাশাপাশি ‘ফেসবুক জিহাদ’, ‘ইনস্টাগ্রাম জিহাদ’। তাঁর দাবি, হিন্দু মেয়েদের কোনও মুসলিম বিয়ে করতে পারবে না। তবে তাঁকে বাঙালি বলেই মনে করেন না, অসম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য তপোধীর ভট্টাচার্য। বলেন, ‘সে তো বিজেপি! বিজেপি কখনও বাঙালি হতেই পারে না।’
অন্যদিকে, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, প্রবীণ কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈ মন্তব্য করেছেন, ধর্মের নামে বিজেপি অসমে অশান্তির বিষ ছড়াচ্ছে। সংখ্যালঘু সংগঠনের তরফে ফের দাবি উঠেছে, সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার করতে হবে শিলাদিত্যকে।

জনপ্রিয়

Back To Top