সমীর ধর 
আগরতলা, ৪ জুলাই

বয়স্কদের করোনার হাত থেকে রক্ষা করতে রীতিমতো ডাক্তারি পরামর্শ দিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেব। রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। 
এই মহামারীতে বাড়িতে বয়স্কদের নিয়মিত তুলসীপাতা বা আদা দিয়ে গরম জল খাওয়াতে টুইটে পরামর্শ বিপ্লবের। সেই সঙ্গে করোনা মহামারী রুখতে ত্রিপুরাবাসীকে বিনে পয়সায় লেবুর রস এবং আনারস খাওয়ানোর এক সরকারি কর্মসূচি শনিবার বেশ ঢাকঢোল পিটিয়েই উদ্বোধন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। শুরু করেছেন পূর্বপুরুষের নামে গাছ লাগানোর ‘‌স্মৃতিবন’‌ প্রকল্পও। দুটি অনুষ্ঠানেই সরকারি কর্মকর্তা এবং দলীয় সমর্থকরা শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার নিয়মের বিন্দুমাত্র তোয়াক্কা না করায় তুমুল সমালোচনা হচ্ছে। ভিডিও ছবিতে মুখ্যমন্ত্রীকেও এ ব্যাপারে কোনও গুরুত্ব দিতে দেখা যায়নি। এমনকী অনেকটা সময় তাঁর মুখে মাস্কও পরা ছিল না। সোশ্যাল মিডিয়ায় কথা উঠছে, মুখে মাস্ক পরা না থাকলে সাধারণ মানুষকে ধরছে পুলিশ, ৪০০ টাকা পর্যন্ত জরিমানা আদায় করা হচ্ছে। 
উত্তর–পূর্বাঞ্চলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় অসমের পরেই ত্রিপুরা। রবিবার ছুটির দিনেই ত্রিপুরা ২৪ ঘণ্টার জন্য পুরো লকডাউনে যাচ্ছে। কোভিড সংক্রমিতের সংখ্যাতেও রাশ টানার কোনও লক্ষণ নেই। শনিবার সংক্রমণ মিলল আরও ৪৭ জনের দেহে। মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১,৫৮২। এঁদের বেশির ভাগই বিমানে রাজ্যে ফিরেছেন। জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেব। বেশিরভাগই ধলাই জেলার। রাজ্যের আট জেলার মধ্যে উত্তর ত্রিপুরা এবং উনকোটিতে একটু কম হলেও বাকি সব জেলাতেই প্রচুর করোনা রোগী মিলেছে। রাজ্য সরকার এখনও গোষ্ঠী সংক্রমণের কথা স্বীকার না করলেও দক্ষিণ ত্রিপুরা, গোমতী এবং সিপাহিজলা জেলায় তার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বলে মেনে নিয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। রবিবার একদিনের লকডাউন রাজ্যে। এদিন এমনিতেই ছুটি। বহু জায়গার হাটবাজারেও সাপ্তাহিক বন্ধ। কিন্তু, এর মধ্যে লকডাউনে দোকানবাজার খোলা রাখার সরকারি ঘোষণায় রীতিমতো বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে। কোভিড শেকল ভাঙার জন্য এ মাসে আরও কয়েক দিন এইরকম ২৪ ঘণ্টার লকডাউন করার কথা ভাবছে রাজ্য। ‌‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top