আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ শান্তি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ওপর একটি সভার আয়োজন করার অভিযোগে দেশের একদল বিশিষ্ট সমাজকর্মীকে আটক করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। সূত্রের খবর, শনিবার ও রবিবার, এই দু’‌দিন সভা হওয়ার কথা ছিল উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায়। এই সভার ডাক দিয়েছিলেন লেখক ও সমাজকর্মী রাম পুনিয়ানি, খুদাই খিদমতগার আন্দোলনের নেতা ফয়জল খান, ম্যাগসেসে পুরস্কার জয়ী সন্দীপ পান্ডে ও অযোধ্যায় সারিয়ু কুঞ্জ মন্দিরের প্রধান পুরোহিত মহান্ত শাস্ত্রী। শনিবার ভোররাতে এই সভার উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার সময় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ তাঁদের আটক করে বলে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর। পুলিশের দাবি, সমাজজকর্মীদের মন্তব্যে অযোধ্যার শান্তি বিঘ্নিত হতে পারে। 
রাম পুনিয়ানির বক্তৃতার মধ্য দিয়ে এই সভা শুরু হওয়ার কথা ছিল। তিনি সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘‌আমি ও সন্দীপ পান্ডে শনিবার ভোর চারটে নাগাদ অযোধ্যার উদ্দেশ্যে রওনা দেই। তখন আমার বাড়িতে পুলিশ এসে জানায় যে সভা বাতিল করা হয়েছে। পুলিশ আধিকারিকরা বারবার জানাচ্ছিলেন যে এই সভার ফলে ওই অঞ্চলের শান্তি বিঘ্নিত হতে পারে। আমরাও জানিয়েছিলাম, এই সভার উদ্দেশ্য শান্তি বজায় রাখা। অশান্তি ছড়ানো নয়। নিয়ম মতোই সভা চলবে। তারপরও পুলিশ আমাদের পিছু নেয় এবং রাস্তায় একটি টোল বুথের সামনে আমাদের আটকে দেয়। আমাদের দীর্ঘক্ষণ সেখানে বসিয়ে রাখা হয়। বাধ্য হয়ে সভা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে হয় আমাদের।’ ‌
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জম্মু–কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে লখনউয়ের হজরতগঞ্জে মোমবাতি মিছিলের ডাক দিয়েছিলেন সন্দীপ পান্ডে। তারপর থেকেই তাঁকে গৃহবন্দী করে রেখেছিল উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথের নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার।     ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top