আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বুধবার ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে দিল্লির রবিদাস মন্দির। দলিত সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্থান হিসাবেই পরিচিত এই মন্দিরটি। গত ১০ আগস্ট সুপ্রিম কোর্ট এই মন্দিরটি ভেঙে দেওয়ার পক্ষেই রায় দিয়েছিল। কিন্তু দলিত সম্প্রদায়ের সঙ্গে কোনওরকম আলোচনায় না গিয়ে মন্দিরটি এভাবে ভেঙে দেওয়ার প্রতিবাদে রাজধানীর রাজপথে জড়ো হয়েছেন হাজার হাজার দলিত মানুষ। সারা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে দিল্লির রামলীলা ময়দানে বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন তাঁরা। মাথায় নীল টুপি। হাতে পতাকা। ‘‌জয় ভিম’ স্লোগান দিয়ে‌ দিল্লির আম্বেদকর ভবন থেকে রামলীলা ময়দান পর্যন্ত মিছিলও করেছেন বিক্ষোভকারীরা। পাঞ্জাব, রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা এবং ভারতের অন্যান্য রাজ্য থেকে বহু দলিত সম্প্রদায়ের মানুষ সামিল হয়েছেন এই বিক্ষোভে। অনির্দিষ্টকালের জন্য অনশনে বসারও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অনেকে। বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন দিল্লির সমাজ কল্যান মন্ত্রী রাজেন্দ্রপাল গৌতম, ভীম সেনা প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদ ও দলিত সম্প্রদায়ের আধ্যাত্মিক নেতারা। 
রাজেন্দ্রপাল গৌতম জানিয়েছেন, ‘‌সুপ্রিম কোর্টের রায়ের বিরোধিতা আমরা করছি না। এই সম্প্রদায়ের একটি অংশ হিসাবে আমি এখানে এসেছি। দিল্লির মন্ত্রী হিসাবে নয়। প্রশাসনের কাছে আমরা জবাব চাই, কেন শুধুমাত্র দলিতদের মন্দিরই ভেঙে ফেলা হচ্ছে?‌ কেন দেশজুরে আম্বেদকরের মূর্তি ভেঙে ফেলা হচ্ছে?‌’‌    
এক বিক্ষোভাকারী জানিয়েছেন, ‘মন্দির অন্য কোনও বিকল্প জায়গায় স্থাপন করা প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে ‌প্রশাসনের পক্ষ থেকে। যদি তাই হয়, তাহলে রাম মন্দিরটি কেন অন্য জায়গায় স্থানান্তর করা হবে না?‌ সুপ্রিম কোর্টের রায় সম্পর্কেও আমাদের কিছু জানানো হয়নি। কেন, আমরা কি এদেশের নাগরিক নই?‌’‌
গোটা ঘটনাটিতে রাজনীতির রঙ লাগানোর চেষ্টা করছে আম আদমি পার্টি, অভিযোগ বিজেপির। বিজেপি নেতা বিজয় গোয়েল জানিয়েছেন, ‘‌দলিত সম্প্রদায়ের একাধিক নেতার সঙ্গে আমরা বৈঠক করেছি। সমস্যার সমাধান করা হবে, সেকথাও জানিয়েছি। আমরা বলেছিলাম, মন্দিরটি অন্য কোনও স্থানে নতুন করে তৈরি করা যেতে পারে। তাঁরা রাজি থাকলে, বিষয়টি দিল্লি উন্নয়ন পর্ষদের কাছে নিয়ে যাব আমরা।’‌ ‌

জনপ্রিয়

Back To Top