আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশের প্রধানমন্ত্রী জহওরলাল নেহরু কিংবা জাতির জনক মহাত্মা গান্ধী নন, মহারাষ্ট্রে পড়ুয়াদের আরও বেশি করে পড়তে হবে দেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জীবনী। সম্প্রতি মহারাষ্ট্রের শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে মোদির জীবনীর উপর প্রকাশিত বই বিপুল পরিমাণে কেনার অর্ডারও দেওয়া হয়েছে। শোনা যাচ্ছে প্রায় ১.‌৫ লক্ষ বই কেনার নির্দেশ দিয়েছে সে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর। সেই তুলনায় নেহরু, গান্ধী কিংবা ভীমরাও আম্বেদকরের জীবনী কেনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে খুবই কম পরিমাণে। যা নিয়ে ইতিমধ্যে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। গত মাসে এই বইগুলি কেনার জন্য অর্ডার দেওয়া হয়েছে। চলতি মাসের শেষ দিকেই সেই বইগুলি সরকারি বিভিন্ন স্কুলে পৌঁছে যাবে। শিক্ষা দপ্তরের এক আধিকারিক জানান, ‘‌মোদির পাশাপাশি নেহরু, গান্ধী এবং আম্বেদকরের জন্যও বই কেনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মোদির বইয়ের তুলনায় সেই সংখ্যাটা খুবই নগন্য।’ সূত্র মারফত খবর, যেখানে মোদির উপর লেখা ১,৪৯,৯৫৪টি বই কিনতে বলা হয়েছে, সেখানে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী নেহরুর উপর লেখা ১৬৩৫টি বই, মহাত্মা গান্ধীর ৪,৩৪৩টি এবং ভীমরাও আম্বেদকরের উপর লেখা ৭৯,৩৮৮টি বই কিনতে বলা হয়েছে। এদিকে দেশের আরেক প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর উপর লেখা ৭৬৭১৩টি বইও কেনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে ছত্রপতি শিবাজী (‌৩,৪০,৯৮২টি)‌ এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম (৩,২১,৩২৮টি‌)‌ এই দিক থেকে অনেকটাই এগিয়ে। সর্ব শিক্ষা অভিযানের অন্তর্গত প্রথম শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেণির জন্য বইগুলি কেনা হচ্ছে। মারাঠি, হিন্দি, ইংরেজি এবং গুজরাটি–এই চারটি ভাষায় মুদ্রিত বইগুলি। এদিকে, মহারাষ্ট্রের শিক্ষা মন্ত্রী এক প্রশ্নের উত্তরে জানিয়েছেন, ‘‌বই কেনায় কোনওরকম অস্বচ্ছতা নেই। একটি বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রস্তাব মেনেই এই বইগুলি কেনার নির্দেশ জারি করা হয়েছে।’‌ ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top