আজকাল ওয়েবডেস্ক: দেশের কোভিড পরিস্থিতি সামলাতে কেন্দ্রের ভূমিকা নিয়ে খুবই অবাক ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ)। কারণ তাঁদের মতে, অতিমারী মোকাবিলায় আলস্য দেখানোর পাশাপাশি এবং ভুলভাল পদক্ষেপ নিয়েছে কেন্দ্র। এই কথা আইএমএ-র তরফে সরকারিভাবে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে। আরও বলা হয়েছে, আইএমএ এবং অন্যান্য বিশেষজ্ঞরা যে সমস্ত পরামর্শ, জ্ঞান এবং সচেতনতার অনুরোধ করেছিল তা স্রেফ আস্তাকুঁড়ে ফেলে দেওয়া হয়েছে। 
এই মুহূর্তে দেশের বিভিন্ন রাজ্য নিজেদের মতো সম্পূর্ণ কিংবা আংশিক লকডাউন ঘোষণা করেছে। কিন্তু আইএমএ-র তরফে অনেক আগেই দেশজুড়ে লকডাউন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। হাসপাতাল এবং অন্যান্য চিকিৎসা পরিষেবা কেন্দ্রগুলো যাতে নিজেদের প্রস্তুত রাখতে পারে তার জন্য পূর্ব-ঘোষিত লকডাউন জরুরি ছিল, বলছে আইএমএ। একমাত্র সম্পূর্ণ লকডাউনই এই মহা সংক্রমণের চেন ভাঙতে পারে, বলছে তারা। 
আইএমএ-র বিবৃতিতে স্পষ্ট বলা হল, তাদের হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও লকডাউন করেনি কেন্দ্র, আর আজ প্রতিদিন নতুন করে ৪ লক্ষ মানুষ সংক্রমিত হচ্ছেন। এর মধ্যে মাঝারি থেকে খারাপ অবস্থার রোগীর হার অন্তত ৪০ শতাংশ। বিবৃতিতে বলা হল, ‘বিক্ষিপ্ত নাইট কার্ফু আদৌ কোনও কাজ দেয়নি। অর্থনীটির থেকে মানুষের প্রাণের দাম বেশি।’ অক্সিজেন সঙ্কট নিয়েও কেন্দ্রকে বিঁধেছে আইএমএ। তারা জানিয়েছে, দেশে অক্সিজেন যথেষ্ট আছে, ভুল হচ্ছে বিতরণ করায়। 
গোটা স্বাস্থ্য প্রশাসনটাই ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল সার্ভিসের দক্ষ কর্মীদের দিয়ে ঢেলে সাজানো উচিত বলে জানিয়েছে আইএমএ। তা দিয়েই একমাত্র সুচারুভাবে এই অতিমারির মোকাবিলা এবং ঠিকঠাক স্বাস্থ্যমন্ত্রক গড়ে তোলা যাবে।            
 

জনপ্রিয়

Back To Top