আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ হিসাব বহির্ভূত কতটা সোনা রাখতে পারেন কোনও একজন নাগরিক তার সীমা নির্ধারণের পরিকল্পনা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। সম্প্রতি এখবর জানা গিয়েছে। এজন্য আনা হবে গোল্ড অ্যামনেস্টি প্রকল্প। সেই নির্দিষ্ট সীমার বাইরে যাঁদের কাছে সোনা মিলবে তাঁরা শাস্তি পেতে পারেন। এই খবরের পর স্বভাবতই আতঙ্কিত দেশবাসী। এব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা জানালেন, যে কোনও নাগরিক যত খুশি সোনার গয়না নিজেদের কাছে রাখতেই পারেন। কিন্তু সেই সোনায় বিনিয়োগ করার আয়ের পথ কোনটা তা তাঁদের ঠিকমতো ব্যাখ্যা করতে হবে। তবে পুরুষ এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে হিসাব বহির্ভূত সোনা বাড়িতে রাখার পৃথক সীমা আছে।
ফিনওয়ের প্রতিষ্ঠাতা রচিত চাওলা বললেন, ‘‌সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেস বা সিবিডিটি–র নিয়ম অনুযায়ী, কোনও ভারতীয় পুরুষ বা মহিলা নাগরিক নিজেদের ইচ্ছামতো সোনার গয়না বাড়িতে রাখতে পারেন। যদি তিনি বিশদে ব্যাখ্যা দিতে পারেন সেই সোনা কেনার অর্থ কোথা থেকে পেয়েছেন।’‌ চাওয়াল সুরে সুর মিলিয়ে একই কথা বললেন অন্যান্য বাণিজ্যিক কোম্পানির কর্তারাও। ২০১৬ সালের ১ ডিসেম্বর সিবিডিটি–র বিজ্ঞপ্তিতেই একথা বিস্তারিতভাবে উল্লেখ রয়েছে বলে জানালেন তাঁরা। কর্পোরেট সেক্রেটারিয়েট অ্যান্ড লিগ্যালের মুখ্য মেন্টর এবং কর্ত্রী সাক্ষী আগরওয়াল আরও বললেন, ভারতে সাধারণত, একজন বিবাহিত মহিলা ৫০০ গ্রাম সোনা, অবিবাহিত মহিলা ২৫০ গ্রাম সোনা এবং একজন পুরুষ ১০০ গ্রাম সোনা ঘরে রাখতে পারেন। সেই সোনা কেনার অর্থের ব্যাখ্যা তাঁরা ঠিক মতো দিতে না পারলেও সেটা বাজেয়াপ্ত করতে পারবে না আয়কর দপ্তর।    

জনপ্রিয়

Back To Top