‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ভারভরা রাও–সহ পাঁচ সমাজকর্মীর গৃহবন্দির মেয়াদ সোমবার পর্যন্ত বাড়িয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট। এই পাঁচজনকে মুক্তি দেওয়ার জন্য যে আবেদন করা হয়েছে, সোমবারই তার শুনানি হবে শীর্ষ আদালতে।পুনের ভিমা–কোরেগাঁও হিংসায় জড়িত সন্দেহে গত ২৮ আগস্ট ভারভরা রাও, ভার্নন গঞ্জালভেস, অরুণ পেরেরা, সুধা ভরদ্বাজ এবং গৌতম নওলখাকে গ্রেপ্তার করে পুনে পুলিস। পরের দিনই তাঁদের রেহাই দেওয়ার জন্য শীর্ষ আদালতে আবেদন করেন ইতিহাসবিদ রোমিলা থাপার।
গ্রেপ্তারি নয় বরং গত ২৯ আগস্ট এই সমাজকর্মীদের গৃহবন্দি করার নির্দেশ দেয় আদালত। সেই সঙ্গে কড়া ভাষায় কেন্দ্রকে ভর্ৎসনা করে আদালত। এভাবে বিরোধী কন্ঠস্বর যে বন্ধ করা উচিত নয় সেটাও ঠারেঠোরে বুঝিয়ে দেয় আদালত। তারপর থেকেই গৃহবন্দি রয়েছেন সমাজকর্মীরা। গত সপ্তাহে মহারাষ্ট্র পুলিসের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টকে জানানো হয় যে, এই গ্রেপ্তারের সঙ্গে ধৃত ব্যক্তিদের ব্যক্তিগত জীবন অথবা সরকারের সঙ্গে রাজনৈতিক মতাদর্শের সংঘাতের কোনও যোগ নেই। তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে কারণ, তাঁদের প্রত্যেকের নামেই রয়েছে গুরুতর অপরাধ এবং সেই অপরাধের বস্তুগুলিকে সঙ্গে রাখার অভিযোগ। তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে সেই কারণেই।
ধৃতদের ল্যাপটপ, কম্পিউটার, পেন ড্রাইভ এবং মেমোরি কার্ড থেকে প্রচুর তথ্য উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিস। ওই জিনিসগুলি থেকে যে তথ্য পাওয়া গিয়েছে তা অত্যন্ত ভয়ঙ্কর এবং ওই সব তথ্য থেকে যে প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে তা থেকে বোঝা যাচ্ছে মাওবাদী সংগঠনের সদস্যই শুধু তাঁরা ছিলেন না। সমাজকে অস্বস্তিতে ফেলে দেওয়ার মতো অনেক ধরণের কাজ করারই পরিকল্পনা গ্রহণও করেছিলেন তাঁরা। 

জনপ্রিয়

Back To Top