আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌  রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ও সরকারের চলতি সঙ্ঘাত নিয়ে এবার মুখ খুলল কেন্দ্র। রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে সরকারি কোষাগারে অর্থ দিতে চাপ দেওয়ার দাবি সম্পূর্ণ মিথ্যা। দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্কের কাছে কোনও অর্থ চায়নি কেন্দ্র। টুইট করে এমনটাই জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থ সচিব সুভাষচন্দ্র গর্গ। তাঁর দাবি ভুল তথ্যই প্রচার করা হচ্ছে সংবাদমাধ্যমে। টুইটে তিনি লেখেন, ‘‌সরকারের আর্থিক চিন্তাভাবনা একদম সঠিক পথে রয়েছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কাছে আর্থিক সাহায্য চাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই।’ তিনি আরও জানান, কেন্দ্র কেবল রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে আর্থিক মূলধনের পরিকাঠামো ঠিক করার পরামর্শ দিয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘‌২০১৩–১৪ আর্থিক বছরে ভারত সরকারের এফডি ছিল ৫.‌১ শতাংশ। কিন্তু তারপর থেকে সেটি অনেকটাই কমিয়ে ফেলেছে কেন্দ্র। ২০১৮–১৯ আর্থিক বছরে এফডি ৩.‌৩ শতাংশে কমে যাবে।’‌  যদিও সুভাষচন্দ্র গর্গের এই দাবি কতটা সত্যি তাই নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন।‌ সম্প্রতি জানা গিয়েছিল, কেন্দ্রীয় সরকার নাকি রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার কাছে মোট মূলধনের এক তৃতীয়াংশ সরকারি কোষাগারে জমা করার জন্য ‘‌আর্জি’‌ জানিয়েছিল। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমটির দাবি, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মূলধন থেকে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার কোটি টাকা অনুদান হিসেবে চেয়েছিল কেন্দ্র। সংসদে পেশ করা তথ্যানুযায়ী এই মুহূর্তে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মোট সঞ্চয়ের পরিমাণ ৯.৫৯ লক্ষ কোটি টাকা। অর্থ মন্ত্রকের বক্তব্য, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক যদি মোট সঞ্চয়ের এক–তৃতীয়াংশ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির স্বাস্থ্য ফেরানোর জন্য দেয়, তা হলে আরও বেশি সংখ্যক নাগরিককে আরও বেশি পরিমাণে ঋণ দিতে পারবে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলি। তাতে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির ব্যবসা সম্প্রসারণে সুবিধা হবে। আরবিআই সরকারি আর্জিতে সরাসরি না বলে দেওয়ার ফলে বিরোধ তৈরি হয়েছে। আরবিআইয়ের কর্তাদের যুক্তি, সরকারি আর্জি মেনে টাকা দেওয়া হলে তাদের বিশ্বাসযোগ্যতায় ঘাটতি হত। এরই মধ্যে আরবিআই গভর্নর উর্জিত প্যাটেলকে অপসারণের জল্পনার কারণ হিসেবে সরাসরি সরকারি আর্জিতে না বলে দেওয়ার ঘটনাই দায়ী, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top