আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ খানিকটা ভাল কিন্তু সামগ্রিক খারাপ হয়েছে কংগ্রেসের। তাই কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাইছেন রাহুল গান্ধী বলে সূত্রের খবর। অথচ এই পরাজয়ের পর পদত্যাগ করলেন কংগ্রেসের উত্তরপ্রদেশের সভাপতি রাজ বব্বর। তিনি ছাড়াও পদত্যাগ করেছেন কর্নাটকের দায়িত্বে থাকা এইচকে পাতিল এবং ওড়িশার দায়িত্বে থাকা নিরঞ্জন পট্টনায়েক। জানা গিয়েছে, তিনজনেই নিজেদের ইস্তফাপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন রাহুল গান্ধীর কাছে।
এই পরিস্থিতিতে শনিবার ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকেছে কংগ্রেস। সেখানেই হারের ময়নাতদন্ত করা হবে। এবার তুরুপের তাস হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছিল প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে। তারপরও উত্তরপ্রদেশে তেমন সাফল্য মেলেনি। সেক্ষেত্রে দলীয় স্তরে কিছু রদবদল হতে পারে। দলীয় সূত্রে খবর, এই বৈঠকেই নিজের ইস্তফার ব্যাপারে কথা বলতে পারেন রাহুল। কারণ কংগ্রেসের গড় আমেঠী থেকে হারতে হয়েছে রাহুলকে। তাই ব্যর্থতার দায় নিয়েই সরে যেতে চান রাহুল।
অন্যদিকে ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধীর রায়বরেলী ছাড়া আমেঠী থেকে রাহুল গান্ধী, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ারা হেরেছেন। আর তারপরেই এই হারের দায় নিজের ঘাড়ে নিয়েছেন রাজ বব্বর। ফতেহপুর সিক্রি কেন্দ্র থেকে রাজ বব্বর নিজেও হেরেছেন। একটি টুইট করে রাজ বব্বর লিখেছেন, ‘‌উত্তরপ্রদেশ কংগ্রেসের জন্য এই ফল খুবই হতাশার। আমি নিজের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে পারিনি। এই হারের দায় আমার। আমি দলের নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলে সবটা জানাবো। যাঁরা জিতেছেন তাঁদের শুভেচ্ছা জানাই।’‌  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top